চব্বিশ ঘণ্টায় চার লাশ

তুষার দেব

21

জাতীয় নির্বাচনের ডামাডোল শেষে ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহেই নগরীর তিনটি পৃথক স্থান ও জেলার স›দ্বীপ থেকে এক তরুণীসহ চারজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরমধ্যে একমাত্র তরুণী ছাড়া বাকি তিন পুরুষই যে হত্যাকান্ডের শিকার সে ব্যাপারে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। গত রবিবার মধ্যরাত থেকে গতকাল সোমবার দুপুর পর্যন্ত মাত্র চব্বিশ ঘণ্টার ব্যবধানে পৃথক সময়ে এসব হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে। তবে, রাতে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পুলিশ খুনের ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।
খুনের ঘটনাগুলো সম্পর্কে বিভিন্ন সূত্রে খোঁজ নিয়ে অভিযোগ ও পাল্টা অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরমধ্যে গতকাল সোমবার সকালে নগরীর পাহাড়তলী বাজার ও রেলওয়ে কলোনি এলাকায় আধিপত্য বিস্তার এবং চাঁদাবাজির জের ধরে ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতাকে নিজের দখলকৃত কার্যালয়ের ভেতরেই প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত মহিউদ্দিন সোহেল (৪০) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক উপ-শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক। এ ঘটনায় আরও দু’জন আহত হয়েছেন। তারা হলেন, মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক ওসমান খান ও মহিউদ্দিন সোহেলের অনুসারী রাসেল দে। আহত ওসমান খান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফিরলেও রাসেলকে সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের রক্তাক্ত জখমের চিহ্ন রয়েছে। এ হত্যাকাÐ নিয়ে দিনভর নানামুখী আলোচনা-সমালোচনা শোনা গেছে বিভিন্ন মহলে।
এছাড়া, নগরীর দক্ষিণে সমুদ্রতীরবর্তী পতেঙ্গার মাইজপাড়ায় গভীর রাতে পিটুনিতে নিহত হয়েছেন স্থানীয় যুবক মো. ফারুক। তার মোবাইল রিচার্জের একটি দোকান রয়েছে। প্রায় একই সময়ে ডবমুরিং থানার মোল্লাপাড়া থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বস্তাবন্দী অবস্থায় পড়ে থাকা অজ্ঞাত তরুণীর লাশ। সর্বশেষ গতকাল সোমবার বিকালে দস্যুকবলিত দ্বীপ উপজেলা স›দ্বীপের বেড়িবাঁধে দু’পক্ষের গোলাগুলির ঘটনায় নিহতের ঘটে। গোলাগুলির থামার পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মো. ইউসুফ ওরফে কালা মনির (৩২) নামে থানার তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসীর লাশ উদ্ধার করে।
ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মহিউদ্দিন সোহেল হত্যা ঃ গতকাল সোমবার সকালে নগরীর ডবলমুরিং থানার পাহাড়তলী রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনি এলাকায় প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয় সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন সোহেলকে। নিহত মহিউদ্দিন চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার মিলারচর গ্রামের আব্দুল বারিকের ছেলে। তার বাবা রেলওয়ের সাবেক কর্মচারি। পরিবার নিয়ে নগরীর খুলশী আবাসিক এলাকায় বসবাস করলেও রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনির দু’টি স্টাফ কোয়ার্টার দখল করে কার্যালয় খুলে আধিপত্য কায়েম করেছিলেন এই সাবেক ছাত্রনেতা। সেখানেই বসে আড্ডা দিতেন।
হত্যাকাÐ সম্পর্কে ডবলমুরিং থানার ওসি মহিউদ্দিন সেলিম বলেন, পাহাড়তলী ব্যবসায়ীরা বাজারের দোকানপাট বন্ধ রেখে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। এরপর সেখান থেকে মহিউদ্দিন সোহেল, রাসেল ও ওসমান খান নামের তিনজনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ হয়ে স্থানীয় বাজারের ব্যবসায়ীরা মহিউদ্দিন সোহেল ও রাসেলকে পিটুনি দিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি। তদন্তে বিস্তারিত জানা যাবে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, পাহাড়তলী রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনি ও পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজার এলাকার নিয়ন্ত্রণ ছিল বাজারের ব্যবসায়ী ও মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক ওসমান খানের। বছর খানেক ধরে রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনির দু’টি স্টাফ কোয়ার্টার দখল করে কার্যালয় খুলে বসে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মহিউদ্দিন সোহেল। নাম দেন ‘এম এন কম্পাউন্ড’। সেখানে বসে পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজারের নিয়ন্ত্রণ করতেন তিনি। তার অনুসারীরা বাজারে আসা পণ্যবাহী গাড়ি ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করতেন বলে অভিযোগ করেছেন ব্যবসায়ীরা। সোমবার সকালে পাহাড়তলী রেলওয়ে পাওয়ার হাউস গেটে ওসমান খানের সঙ্গে মহিউদ্দিন সোহেলের লোকজনের বাকবিতÐা হয়। এক পর্যায়ে ওসমান খানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে সোহেলের অনুসারীরা। তারা তার মাথা ফাটিয়ে দেয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে ওসমান খানের অনুসারী ও বাজারের ব্যবসায়ীরা ঘন্টাখানেকের মধ্যে সেখানে জড়ো হন। সেখান থেকে মহিউদ্দিন সোহেলের দখলকৃত কার্যালয়ে ঢুকে সোহেল ও রাসেলকে পেয়ে এলোপাথাড়ি কোপানো ও মারধর করা হয়। এরপর বিক্ষুব্ধরা কার্যালয়টিতে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনায় পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজারের ব্যবসায়ীরা সকাল থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত দোকান বন্ধ রাখে।
নিহত মহিউদ্দিন সোহেলের ভাই মো. শিশির অভিযোগ করে বলেন, পাহাড়তলী রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনি এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে জুয়া ও অসামাজিক কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল ওসমান খানের অনুসারীরা। এসব বন্ধ করে দিয়েছিল সোহেল। এর জের ধরে পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে।
অপরদিকে, সোহেলের অনুসারীদের হামলায় আহত বাজারের ব্যবসায়ী ও জাতীয় পার্টির নেতা ওসমান খান বলেন, সকালে রেলওয়ে পাওয়ার হাউস কলোনির গেট দু’টি বন্ধ করে দেয় মহিউদ্দিন সোহেল। ফলে, কলোনির লোকজন বাজারে আসা-যাওয়া করতে পারছিল না। আমি এর প্রতিবাদ করলে তার ছেলেরা এসে কিরিচ দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে। এরপর বাজারের ব্যবসায়ীরা জড়ো হয়ে তাকে গণপিটুনি দিয়েছে।
পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজার ব্যবসায়ী সমিতির আহবায়ক ও সরাইপাড়া ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাবের আহমদ বলেন, বাজারের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আসলে মহিউদ্দিন সোহেলের কোনো ঝামেলা হয়নি। বাজারের মুদি দোকানি ওসমান খানের সঙ্গে তার ঝামেলা সৃষ্টি হয়। কলোনিতে আগে জুয়ার আসর বসতো। এসব নিয়ন্ত্রণ করতো ওসমান। এখন মহিউদ্দিন সোহেল এসব নিয়ন্ত্রণ করে বলে শুনেছি। ব্যবসায়ীদের কাছ থেকেও মহিউদ্দিনের লোকজন চাঁদাবাজি করত বলে শুনেছি। তবে কখনো কেউ লিখিতভাবে অভিযোগ করেনি।
তবে পাহাড়তলী রেলওয়ে বাজারের ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, সোহেল ও তার অনুসারীরা দীর্ঘদিন ধরে বাজারে আসা মালবাহী প্রতিটি ট্রাক থেকে ৫০ টাকা করে চাঁদা আদায় করে আসছিল। গত রবিবার সোহেল ঘোষণা দেন, সোমবার থেকে গাড়ি প্রতি একশ’ টাকা করে দিতে হবে।
বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মো. হান্নান বলেন, ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদা চেয়ে ফোন করতো সোহেল। কেউ দিতে না চাইলে তাকে অফিসে ধরে নিয়ে মারধর করত। সেখানে পকেটের মধ্যে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করত। ব্যবসায়ীরা অতিষ্ট হয়ে তাকে গণপিটুনি দিয়েছে।
মারধরে যুবক নিহত পতেঙ্গার মাইজপাড়ায় ঃ পিটুনিতে হত্যার পৃথক ঘটনাটি ঘটে নগরীর পতেঙ্গা থানার মাইজপাড়া এলাকায়। এ ঘটনায় নিহত মো. ফারুক (২৭) উত্তর পতেঙ্গার তিন তলা মসজিদ সংলগ্ন এলাহি বক্স বাড়ির বাসিন্দা মৃত খাজা আহমেদের ছেলে। এলাকায় তার মোবাইল ফোন রিচার্জের একটি দোকান আছে।
পতেঙ্গা থানার ওসি উৎপল বড়ুয়া জানান, পুরাতন কন্ট্রোল মোড় এলাকায় গভীর রাতে ফারুককে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে তার বাড়িতে খবর দেয় পরিচিত একজন নিরপত্তারক্ষী। পরিবারের সদস্যরা এসে তাকে বাড়ি নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা দেয়ার চেষ্টা করে। ভোরবেলার দিকে তার মৃত্যু হয়।
ওসি উৎপল বলেন, ময়না তদন্ত করা হয়েছে। প্রাথমিক ধারণা হচ্ছে, একাধিক ব্যক্তি তাকে লাঠি দিয়ে মারধর করেছে। কয়েক মাস আগে ফারুক ১২-১৪টি মোবাইল ফোনসহ গ্রেপ্তার হয়েছিল। পরে সে জামিনে মুক্ত হয়। ঘটনার তদন্ত চলছে বলে তিনি জানান।
বস্তাবন্দী নারীর লাশ মোল্লাপাড়ায় ঃ ওই রাতে প্রায় একই সময়ে নগরীর ডবলুরিং থানাধীন মোল্লাপাড়ার ইউসুফ মিয়ার বাড়ির সীমানা দেয়ালের ভেতর থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক তরুণীর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
ডবলমুরিং থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জহির হোসেন জানান, রশি দিয়ে সেলাই করা প্লাস্টিকের বস্তার ভেতর চাদর মোড়ানো অবস্থায় লাশটি ছিল। বস্তা দেখে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হলে তারা পুলিশে খবর দেয়। গভীর রাতে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। আনুমানিক ২৫ থেকে ৩০ বছর বয়সী ওই তরুণীকে স্থানীয়রা চিনতে পারেননি। ওই তরুণীর পরনে ছিল সালোয়ার কামিজ। প্রাথমিকভাবে তার শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি বলে জানান পরিদর্শক জহির। ময়না তদন্তে মৃত্যুর কারণ কারণ স্পষ্ট হবে।
স›দ্বীপের শীর্ষ সন্ত্রাসী কালা মনির নিহত : আমাদের স›দ্বীপ প্রতিনিধি জানান, দু’গ্রæপের মধ্যে সংঘর্ষে স›দ্বীপের শীর্ষ সন্ত্রাসী মো. ইউসুফ ওরফে কালা মনির (৩২) নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। সোমবার বিকেল পাঁচটায় দ্বীপের রহমতপুর এক নম্বর ওয়ার্ড বেড়িবাঁধে এ ঘটনা ঘটে। স›দ্বীপ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাহজাহান জানান, এলাকায় আধিপাত্য বিস্তার নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে কালা মনিরের অনুগত সন্ত্রাসী কট্টা তাহেরের সাথে তার বিরোধ চলে আসছিল। সোমবার বিকেলে উভয় গ্রæপের সংঘর্ষে মনির নিহত হয়েছে। কালা মনিরের বিরুদ্ধে স›দ্বীপ থানায় দুটি খুন, চারটি অস্ত্র, একটি পুলিশ আক্রান্ত, দুটি মাদক এবং একটি চাঁদাবাজি মামলা রয়েছে। কালা মনির রহমতপুর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড বাসিন্দা মো. হোসেন প্রকাশ লেইংগা হোসেনের পুত্র।
রহমতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইলিয়াস খাঁন জানান, সোমবার সন্ধ্যার দিকে বেড়িবাঁধে গোলাগুলির আওয়াজ শুনি। পরে এলাকার জনগণসহ সেখানে গেলে লাশ পরে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দিই। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এসময় লাশের পাশে পড়ে থাকা একটি এলজি, একটি একনলা বন্দুক ও একশ ২০টি ইয়াবা বড়িও জব্দ করে পুলিশ।