চন্দনাইশে দোকানে মিললো চেয়ারম্যান মেয়রের সিল

চন্দনাইশ প্রতিনিধি

23

চন্দনাইশে ভ্রাম্যমাণ আদালতের পৃথক অভিযানে ১টি দোকান সীলগালা ও ১টি মাটি কাটার স্কেভেটর বিকল করে দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন আহমেদ উপজেলা গেইটে আল মদিনা কম্পিউটার সেন্টারে অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় দোকানের মালিক হারলা নয়াহাট সংলগ্ন গ্রামের আছহাব মিয়ার ছেলে মো.পারভেজ প্রকাশ নিখিল (২৩) অনুপস্থিত থাকায় দোকান সীলগালা করা হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, আল মদিনা কম্পিউটার সেন্টারে গিয়ে ছোট একটি ছেলেকে বসে থাকতে দেখা যায়। মালিককে মোবাইল ফোনে ডাকা হলেও তিনি আসেন নাই। তার দোকান থেকে বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরসহ মূল প্যাড, জন্ম সনদ, মূল আইডি কার্ডের নমুনা, বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান, পৌর মেয়রের সীল, এসি ল্যান্ড অফিসের সীলসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছে। তার ব্যবহৃত কম্পিউটার জব্দ করে দোকানটি সীলগালা করা হয়। এছাড়া নয়াহাট সংলগ্ন ধানের জমি থেকে অবৈধভাবে মাটি কাটার অপরাধে মালিকবিহীন ১টি স্কেভেটরের যন্ত্রাংশ খুলে নেয়া হয়।
এদিকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কাগজপত্রবিহীন ও ত্রুটিপূর্ণ ৯টি মোটর সাইকেলের বিরুদ্ধে মোটরযান আইনে মামলা করা হয়েছে। গতকাল সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত গাছবাড়িয়া পুরাতন কলেজ গেইট, জোয়ারা রাস্তার মাথা, সাতঘাটিয়া পুকুর পাড়, বৈলতলী, সাতবাড়িয়া এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে এ অভিযান চালানো হয়েছে।
পুলিশ জানায়, এসআই উনু মং এর নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসিয়ে ৬০টি মোটর সাইকেলের কাগজপত্র দেখে ত্রæটিপূর্ণ হওয়ায় আনোয়ারার রঞ্জিত ধরের ছেলে শিপন দে, গাছবাড়িয়ার কালি শংকর ধরের ছেলে মিঠু ধর, ছৈয়দাবাদের আব্দুল খালেকের ছেলে মো.সেকান্দার বাদশা, হালিশহর চৌধুরী পাড়ার মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে আলাউদ্দীনের মোটর সাইকেলের বিরুদ্ধে মোটরযান আইনে মামলা করা হয়। অপরদিকে এসআই বেলায়েত হোসেনের নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসিয়ে সাতকানিয়ার কালিয়াইশের মিলন আইচের ছেলে উজ্জ্বল আইচ, বরকলের আমিনুল হকের ছেলে মাহমুদুল হক, আনোয়ারা বারখাইনের মৃত নাজিম উদ্দীনের ছেলে আবুল কাশেম, বরমা রাউলীবাগের হাজী শাহ আলমের ছেলে শাহজাহান কামাল, সাতকানিয়ার ঢেমশার দুলা মিয়ার ছেলে মহিউদ্দীনের বিরুদ্ধে মোটরযান আইনে মামলা করা হয়। গাছবাড়িয়া এলাকায় পুরাতন মোটর সাইকেল ফেলে পালিয়ে যাওয়ায় একটি মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়।
এ ব্যাপারে চন্দনাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ কেশব চক্রবর্ত্তী বলেন, অপরাধ প্রতিরোধে অবৈধ, ত্রুটিপূর্ণ মোটর সাইকেল চিহ্নিত করতে এ অভিযান চলছে।