চট্টগ্রামে আরও ২০৬ জন করোনা আক্রান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

93

চট্টগ্রামে ৬২১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে আরো ২০৬ জনের দেহে করোনা ভাইরাস কোভিড- ১৯ শনাক্ত করা গেছে। এর মধ্যে নগরের রয়েছেন ১২০ জন এবং উপজেলার ৮৬ জন। গত মঙ্গলবার (২ জুন) জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সর্বশেষ প্রতিবেদনে এই তথ্য তুলে ধরা হয়। এ নিয়ে জেলায় মোট ৩ হাজার ৩৯৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত করা গেলো। আক্রান্তদের মধ্যে মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৮৩ জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছে সংশ্লিষ্ট এই প্রতিষ্ঠানটি। ২ জুন পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে মোট ২৪৮ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন মোট ৩০৬ জন বলে জানা গেছে।
প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মঙ্গলবার ২ জুন পর্যন্ত চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডিতে মোট ২৫২টি নমুনা পরীক্ষা করে ৫৯ জনের দেহে কোভিড- ১৯ পজিটিভ শনাক্ত হয়। এর মধ্যে নগরের ৩৬ ও উপজেলার রয়েছেন ২৩ জন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ল্যাবে ২৫১টি নমুনা পরীক্ষায় মোট ৮৭ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এরমধ্যে নগরের রয়েছেন ৭৪ ও উপজেলার ১৩ জন। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ইউনিভার্সিটির ল্যাবে ১১১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এরমধ্যে নগরের ৯ জন এবং উপজেলাগুলোতে রয়েছেন ৫০ জন। কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে চট্টগ্রামের ৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের পজেটিভ আসে যা উপজেলার আওতায়।
এদিন আক্রান্তদের মধ্যে লোহাগাড়ার ১, বাঁশখালীর ১২, পটিয়ার ৪৯, ফটিকছড়ির ৮, রাউজানের ২, হাটহাজারীর ১০, সীতাকুন্ডের ৩, মিরসরাইয়ের ১ জন রয়েছেন। এদিন আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৬১ জন রয়েছেন ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সীরা। এছাড়াও ২১-৩০ বছর বয়সী রয়েছেন ৪৯ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী রয়েছেন ৩৩ জন, ৫১ থেকে ৬৭ বছর বয়সী আছেন ২২ জন, ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী রয়েছেন ১৭ জন, ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি রয়েছেন ১৫ জন এবং শূণ্য থেকে ১০ বছর বয়সী রয়েছে ৯ জন।
উল্লেখ্য, জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সর্বশেষ ২ জুনের প্রতিবেদন অনুসারে চট্টগ্রামে ৩ হাজার ৩৯৭ জন আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগর এলাকার রয়েছেন ২ হাজার ৫৮০ জন এবং উপজেলায় রয়েছেন ৮১৭ জন। এরমধ্যে সর্বোচ্চ ১৪৪ জন নিয়ে উপজেলায় শীর্ষে রয়েছে পটিয়া। ১৩৬ জন নিয়ে হাটহাজারি রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানে। এছাড়াও সীতাকুন্ডে ১০৫ জন, লোহাগাড়ায় ৫৯, বোয়ালখালীতে ৫৮, চন্দনাইশে ৫৫, রাঙ্গুনিয়ায় ৫০, বাঁশখালীতে ৪৮, সাতকানিয়ায় ৪৭, রাউজানে ৪৫, আনোয়ারায় ২১, স›দ্বীপে ১৮, ফটিকছড়িতে ১৬, মিরসরাইয়ে ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়।