গণসংযোগকালে নৌকার মেয়র প্রার্থী রেজাউল

চট্টগ্রামকে অর্থনৈতিক হাব করতে উদ্যোগ নেব

19

চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বহুমাত্রিক বৈশিষ্ট্যে গড়া আমাদের চট্টগ্রাম, আমাদের গৌরব। সমুদ্রবন্দর, বৈচিত্র্যময় ভূ-প্রকৃতি ও সৌন্দর্য্য আর বাণিজ্যবান্ধব পরিবেশের কারণে আন্তর্জাতিকভাবে চট্টগ্রাম সুপরিচিত। চট্টগ্রাম দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভৌগলিক অবস্থান, আমাদের সম্ভাবনার দুয়ার।
তিনি বলেন, আমি মেয়র নির্বাচিত হলে বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও চট্টগ্রামকে অর্থনৈতিক হাব-এ পরিণত করতে বিশেষজ্ঞ মতামত গ্রহণ ও ব্যবসায়ী নেতাদের সমম্বয়ে টাস্কফোর্স গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করব।
গতকাল রবিবার নগরীর উত্তর ও দক্ষিণ আগ্রাবাদে গণসংযোগকালে মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন।
তিনি চট্টগ্রামকে আন্তর্জাতিক মানের আধুনিক নগর হিসাবে গড়তে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নৌকায় ভোট দেয়ার আহব্বান জানান।
তিনি বলেন, দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকা। বন্দর ভিত্তিক কার্যক্রমসহ বৃহৎ শিল্প গোষ্ঠীর প্রায় অফিসই এ এলাকায় অবস্থিত। চট্টগ্রামের অফিস পাড়াকে স্পেশাল সুবিধার আওতায় রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের বিশেষ দৃষ্টি রয়েছে। তথ্য যোগাযোগ এখানে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। একে আরও অধিক শক্তিশালী করে আগ্রাবাদকে বিশেষ তথ্য-প্রযুক্তি সেবার আওয়ায় আনা হবে। এখানে ব্যাংকিং কার্যক্রম আরও জোরদার ও সহজতর করতে সরকারের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এছাড়া আগ্রাবাদের অফিস পাড়াকে বিশেষ নিরাপত্তায় আনতে প্রশাসন ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে। অর্থাৎ আগ্রাবাদ অফিসপাড়াসহ সমগ্র আগ্রাবাদকে বিশেষ নিরাপত্তা জোনের মধ্যে রাখা হবে।
রেজাউল করিম বলেন, আমি সমম্বয় কার্যক্রমে একজন কর্মী হতে চাই। আমি নির্বাচিত হলে নগরীর প্রত্যেকটি ওয়ার্ডের বৈশিষ্ট্য বিবেচনায় প্রয়োজনে পৃথক পৃথক পরিকল্পনা গ্রহণ করব।
তিনি বলেন, চট্টগ্রামের মানুষ সচেতনভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। ধর্মের প্রতি বিশেষ অনুরাগ চট্টগ্রামের মানুষের সহজাত। একটা গোষ্ঠী আমাদের ধার্মিকতাকে তাদের কূটকৌশলে ব্যবহারের চেষ্টা করেছে। দেশকে পিছিয়ে রাখতে চেষ্টা করেছে। সেদিন এখন আর নেই। সরকারের কঠোর নজরদারী ও ব্যবস্থা গ্রহণে এবং মানুষের সচেতনতার কারণে এখন আর কথায় কথায় উম্মাদনা তৈরি করা যায় না।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে চট্টগ্রামেই সবচেয়ে বেশী জাতি-গোষ্ঠীর মানুষের বসবাস। এখানে কোরআন, ত্রিপিটক, গীতা, বাইবেলের বাণী উচ্চারিত হয়। এমন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির চট্টগ্রামে নৌকার বিজয় সম্ভব। চট্টগ্রামসহ সারা দেশে সামাজিক সাম্য, সম্প্রীতি ও সমৃদ্ধি সুদৃঢ় করতে নৌকার বিজয়ের বিকল্প নেই। আওয়ামী লীগ ও জননেত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত প্রার্থী হিসেবে আমি আপনাদের মূল্যবান ভোট প্রত্যাশী। ২৯ মার্চ নৌকায় ভোট দিয়ে উন্নয়ন ধারাকে আরো বেগবান করুন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, জামশেদুল আলম চৌধুরী, ২৪ নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম, কাউন্সিলর প্রার্থী নাজমুল হক ডিউক, কারা পরিদর্শক আজিজুর রহমানসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। বিজ্ঞপ্তি