গাম্বিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞতা আরসার

20

রোহিঙ্গা নিপীড়নে গণহত্যার অভিযোগ তুলে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে মামলা করায় গাম্বিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছে রোহিঙ্গাদের বিদ্রোহী সশস্ত্র সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। এক ভিডিও বার্তায় আরসার প্রধান আতাউল্লাহ আবু আম্মার বলেন, ‘আমি গাম্বিয়া সরকারকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। একমাত্র গাম্বিয়ান সরকারই দেখেছে ও বুঝেছে যে রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও সন্ত্রাসী সরকার গণহত্যা চালাচ্ছে।’
২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর পূর্বপরিকল্পিত ও কাঠামোগত সহিংসতা জোরদার করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। হত্যাকাণ্ড, সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগের বাস্তবতায় জীবন বাঁচাতে নতুন করে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। এই নৃশংসতাকে ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে ২০১৯ সালের ১১ নভেম্বর জাতিসংঘের আদালত ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে)-এ মামলা করে গাম্বিয়া। মামলায় নিজ দেশের আইনি লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি। আতাউল্লাহ বলেন, তারা শুধু আমাদের পরিস্থিতিই বোঝেনি। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে মামলাও করেছে। তাদের প্রতি আমি গভীর কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।
এছাড়া বিশ্বজুড়ে রোহিঙ্গাদের নিয়ে কাজ করা অধিকার কর্মী ও রাজনীতিবিদদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। সত্য রায়ের জন্য তিনি সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানান। রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের কোনও ফাঁদে পা না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আরসা নেতা বলেন, মিথ্যা সাক্ষ্য থেকে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। ভিডিও বার্তার শেষে তিনি বলেন, আমি আমার ভাইদের মনে করিয়ে দিতে চাই আরাকান আমাদের জন্মভূমি। আমরাই এর মালিক। আমরা আমাদের প্রাপ্যটা যেভাবে হোক বুঝে নেবো।