বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি

খাতুনগঞ্জে আড়তদারকে জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক

7

মিশর থেকে ২৯ টাকা এবং চীন থেকে ২৭ টাকা কেজি দরে আমদানি করা পেঁয়াজ ৭০ থেকে ৮০ টাকা বিক্রি করার অপরাধে খাতুনগঞ্জের মাহিন এন্টারপ্রাইজ নামের এক আড়তদারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল বুধবার বেলা ১১ টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত খাতুনগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুল ইসলাম পূর্বদেশকে বলেন, মিশর ও চীন থেকে আমদানি হওয়া পেঁয়াজের এলসি মূল্য, সিএন্ডএফ চার্জ, পরিবহন মূল্য ও ন্যায্য মুনাফা (পচনশীল পণ্যের ক্ষেত্রে ২০%) আমলে নিয়ে মিশর ও চীন থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ পাইকারি পর্যায়ে ৪৫ টাকার মধ্যে বিক্রি করার কথা। কিন্তু মাহিন এন্টারপ্রাইজ মাত্রাতিরিক্ত দামে এসব পেঁয়াজ বিক্রি করছিল। একইসঙ্গে তারা কোনো আমদানির কাগজপত্র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দেখাতে পারেননি। পেঁয়াজের বাজারকে তারা পেপারলেস করে ফেলতে চেয়েছেন। এটি বন্ধে খাতুনগঞ্জের পেঁয়াজের ব্যবসায়ীরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তাই অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৫৬ অনুযায়ী মাহিন এন্টারপ্রাইজকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করে দিয়েছি।
তিনি আরও বলেন, টেকনাফ ও কক্সবাজারে পেঁয়াজের বাজারে সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণে অভিযান অব্যাহত আছে। তাই মিয়ানমারের পেঁয়াজের দাম নিম্নমুখী। শিগগির এস আলম গ্রুপের আমদানি করা বড় চালানটিও দেশে ঢুকবে। আগামীকাল থেকে খুচরা বাজারেও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হবে।
অভিযানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. সেলিম হোসেন ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাসুদ রানা উপস্থিত ছিলেন। এতে র‌্যাব-৭ ও সিএমপি সদস্যরা সহযোগিতা করেন।