ক্রাইস্টচার্চে ভালো খেলতে আশাবাদী রাহী

10

অনভিজ্ঞ পেস আক্রমণ নিয়ে নিউজিল্যান্ডে সাফল্য পাওয়া খুব কঠিন। কিউইদের মাটিতে প্রথম দুই টেস্টে সেটা ভালো মতোই বুঝেছে বাংলাদেশ দল। তবে অন্ধকারের মধ্যে আশার আলো আবু জায়েদ রাহী। দুই টেস্ট মিলে মাত্র তিন উইকেট পেলেও তার বল খেলতে ভালোই সমস্যা হয়েছে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানদের। হ্যামিল্টন আর ওয়েলিংটনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ক্রাইস্টচার্চে শেষ টেস্টে সাফল্য পেতে আশাবাদী বাংলাদেশের তরুণ পেসার। আগামীকাল শনিবার শুরু হতে যাওয়া তৃতীয় টেস্টকে সামনে রেখে বাংলাদেশ দল এখন অনুশীলনে ব্যস্ত। বৃহস্পতিবার অনুশীলন শেষে রাহী সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘এখনও একটা ম্যাচ বাকি আছে। আমরা যে পেস কন্ডিশনে বল সুইং করাতে পারি, সেই বিশ্বাস জন্মেছে আমার মনে। আন্তর্জাতিক ম্যাচে সাফল্য পেতে বোলারদের বাড়তি কষ্ট করতে হয়। তবে দুই টেস্টের অভিজ্ঞতায় আমার আত্মবিশ্বাস বেড়েছে। আশা করি, শেষ টেস্টে আমরা ভালো করতে পারবো।’
ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের আগে ‘বিশেষ’ অনুশীলন নিয়ে তিনি উচ্ছ্বসিত, ‘বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের অধীনে ক্রস সিম বোলিং নিয়ে কাজ করছি। এই জায়গায় বেশ উন্নতি হয়েছে। কারণ আগের চেয়ে বেশি সুইং করাতে পারছি।’ মাত্র তিনটি টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে সিরিজটা শুরু করেছিলেন রাহী। প্রথম টেস্টে উইকেটশূন্য থাকলেও দ্বিতীয় টেস্টে তার শিকার তিন উইকেট। নিজে মোটামুটি সাফল্য পেলেও ওয়েলিংটনে বাংলাদেশের অসহায় আত্মসমর্পণ ভীষণ কষ্ট দিচ্ছে তাকে, ‘ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের চেয়ে দলের পারফরম্যান্স সব সময়ই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। দল ভালো করলে খুব ভালো লাগতো।’
টেস্ট সিরিজ শেষে নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞ পেসার টিম সাউদির পরামর্শ নিতে চান রাহী। তিনি জানিয়েছেন, ‘প্রায়ই ক্রস সিমে ফেলে টিম সাউদি আউটসুইংয়ের মতো বল করেন, কিন্তু বল ক্রিজে পড়ে কিছুটা ইনসুইং হয়ে যায়। আমি এটাই শেখার চেষ্টা করছি। সামনের ম্যাচ শেষে এ বিষয়ে সাউদির সঙ্গে কথা বলতে চাই। আশা করি, এ জায়গায় আমার উন্নতি হবে।’