কারাবন্দিদের হাতে তৈরি হচ্ছে মাস্ক

7

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দিদের হাতে তৈরি হচ্ছে মাস্ক। এসব মাস্ক বিনামূল্যে পাবেন কারারক্ষী ও কর্মকর্তারা। নামমাত্র মূল্যে কারাগারের ভেতর থাকা ক্যান্টিন থেকে মাস্ক সংগ্রহ করতে পারবেন বন্দিরা।
কারাগার সূত্র জানায়, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) কারাগারে বন্দিদের দিয়ে মাস্ক তৈরির কাজ শুরু হয়। প্রথম দিন প্রায় সাড়ে তিনশ মাস্ক তৈরি হয়। বুধবার দ্বিতীয় দিনের মতো তৈরি হচ্ছে মাস্ক। খবর বাংলানিউজের
কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. কামাল হোসেন বলেন, কারাবন্দিদের দিয়ে মাস্ক তৈরি হচ্ছে। এসব মাস্ক বিনামূল্যে কারারক্ষী ও কর্মকর্তাদের মাঝে বিতরণ করা হবে। এছাড়া নামমাত্র মূল্যে কারা ক্যান্টিন থেকে মাস্ক সংগ্রহ করতে পারবেন বন্দিরা।
মো. কামাল হোসেন বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাস্ক ব্যবহার করা হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আমরা কারাগারের ভেতর মাস্ক তৈরির কাজ করছি।
তিনি বলেন, প্রতিদিন গড়ে সাড়ে তিনশ মাস্ক তৈরি হচ্ছে। ১০-১২ জন কারাবন্দি এসব মাস্ক তৈরির কাজ করছে। বর্তমানে কারাগারে অন্যান্য পণ্য উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলেও জানান মো. কামাল হোসেন।
এদিকে কারা কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারেও স্থাপন করা হয়েছে টেলিফোন বুথ। কারাবন্দিরা তাদের স্বজনদের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলতে পারবেন।
বেসরকারি কারা পরিদর্শক অ্যাডভোকেট জিনাত সোহানা চৌধুরী বলেন, কারাবন্দিদের জন্য কারাগারের ভেতরে টেলিফোন বুথ স্থাপন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কষ্ট করে কারাগারে না এসে কারাবন্দির স্বজনরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।
সিনিয়র জেল সুপার মো. কামাল হোসেন বলেন, বন্দিদের সাতটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। তারা নিয়মমাফিক পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন। একজন বন্দি সর্বোচ্চ পাঁচ মিনিট কথা বলতে পারবেন। প্রতি মিনিট কলরেট এক টাকা ধরা হয়েছে।