কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত

62

ঢাকার ইউএস বাংলার কর্মকতারা বলছেন, সোমবার দুপুর ১২টা ৫১ মিনিটে বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নেপালের উদ্দেশে ছেড়ে গিয়ে ২টা ২০ মিনিটের দিকে কাঠমান্ডু ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময়ই এই দুর্ঘটনা ঘটে।নেপাল বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের পরিচালক সঞ্জীব গৌতম জানান, বিমানটি রানওয়েতে অবতরণের সময়ই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে।  প্রথমে বিমানটি কোটেশ্বরের ওপর দিয়ে উড়ে রানওয়ের দক্ষিণ দিকে অবতরণের অনুমতি চায়, কিন্তু এটি পরে উত্তর পাশে অবতরণ করে।  সম্ভবত বিমানটির কারিগরি ত্রুটি ছিল। তবে এই অস্বাভাবিক অবতরণের কারণ তিনি এখনো জানতে পারেননি বলে জানান।

নেপালের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সুরেশ আচার্য কাঠমান্ডু পোস্টকে জানান, বিধ্বস্ত বিমানটির ২৫ জন যাত্রীকে উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। বিধ্বস্ত হওয়া বিমানটিতে ৩৭ জন পুরুষ, ২৭ জন নারী এবং ২ জন শিশু ছিল বলে ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (টিআইএ) কর্তৃপক্ষকে উদ্ধৃত করে কাঠমান্ডু পোস্ট জানিয়েছে।টিআইএ মুখপাত্র প্রেমনাথ ঠাকুরকে উদ্ধৃত করে মাই রিপাব্লিকা নামের একটি

দুর্ঘটনার পর ত্রিভুবন থেকে সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়েছে টিআইয়ের মুখপাত্র প্রেমনাথ ঠাকুর।

এদিকে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমাদের দূতাবাসের কর্মকর্তারা হাসপাতাল এবং এয়ারপোর্টে আছেন। আমার ধারণা, বেশির ভাগ যাত্রীই বেঁচে আছেন।’

অনলাইন সংবাদপত্র জানিয়েছেন, বিমানবন্দরের দক্ষিণের টার্মিনাল থেকে ফেরার সময় রানওয়েতে গিয়ে এটি অদৃশ্য হয়ে যায়। তারপর বড় আকারের ধোঁয়ার কুন্ডলি আকাশে উঠতে দেখা গেছে।