সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের জারুরি সভা

করোনা সনাক্তকরণ ল্যাব স্থাপন ও পরীক্ষা কীট সরবারাহের দাবি

27

বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাস সনাক্তকরণের কোন ল্যাব না থাকায় এবং পরীক্ষা কীটের অপ্রতুলতায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব নেতৃবৃন্দ গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বাংলাদেশের সিংহভাগ আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য চট্টগ্রাম বন্দরকেন্দ্রিক হওয়ায় এখানে প্রচুর দেশি-বিদেশি লোকের আগমন ঘটে। বিশেষজ্ঞদের মতে, চট্টগ্রাম দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে করোনা ভাইরাসের বেশি ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা। কিন্তু সেই মোতাবেক নিরাপত্তামূলক দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নেই বলে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ সভায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তাই যত দ্রুত সম্ভব চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পর্যাপ্ত কীট ও ল্যাব স্থাপনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন। একইসাথে চট্টগ্রামের স্টেশন রোডস্থ সরকারি মোটেল সৈকতকে করোনা সন্দেহের রোগীদের জন্য কোয়ারেন্টাইন ঘোষণা করে এ হোটেলে কার্যক্রম শুরুর দাবি জানান।
গত শুক্রবার এক জরুরি সভায় এসব দাবি জানানো হয়। প্রেস ক্লাব সভাপতি আলহাজ্ব আলী আব্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাহউদ্দিন মো. রেজা, সহ-সভাপতি মনজুর কাদের মনজু, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শামসুল ইসলাম, প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক নজরুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রূপম চক্রবর্তী, ক্রীড়া সম্পাদক দেবাশীষ বড়ুয়া দেবু, গ্রন্থাগার সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, সমাজসেবা ও আপ্যায়ন সম্পাদক মো. আইয়ুব আলী, কার্যকরী সদস্য স ম ইব্রাহীম ও কাজী আবুল মনসুর বক্তব্য রাখেন। বক্তারা আরো বলেন, এমন সংকটময় এবং দুর্যোগমুহূর্তে কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর কারসাজিতে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এ ব্যাপারে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ করেন সাংবাদিক নেতারা। বিজ্ঞপ্তি