ও স্মরণ! ও স্মরণ!

ফাউজুল কবির

3

আমার কিছুই মনে থাকে না আজকাল
স্মৃতিরা বড়ই নিমকহারাম
সব কিছু ভুলে যাই
ভুলেভালে ভুলে থাকে মন মনের মনন
স্মৃতিতে ভুলের জ্বর কারে দেবো দোষ
যাহাকে জিজ্ঞাসা করি বলে বয়স বয়স
বয়সে এমন হয় ? বয়সী বটেরা বলে না কিছুই
নক্ষত্রের হয়েছে বয়স আকাশের হয়েছে বয়স
তারা কি কখনো ভোগে বিস্মৃতির রোগেশোকে ?
একা আমি ভুল করি
ভুল করে স্মৃতি খুঁজি
দুঃখ পাই কষ্ট পাই বেদনা- যন্ত্রণা পাই
জন্মের কথাটি আজ মনে করতে পারে না জীবন
স্বপ্নের কথাটি আজ স্বপ্ন হয়ে ওঠে না স্বপনে
আহা!এ কেমন জীবন ভুলে যায় ভুলে যায়
একাততুরে কোমরে ঝুলানো ছিলো থার্টিসিক্স হ্যান্ডগ্রেনেড
বুকের ভেতরে ছিলো বেয়নেট সাহসের এক্সপ্লোসিভ
যার নাম ভালোবাসা অবিনাশী সাধনার দুঃসাহস-
এখন বিস্মৃতি শুধু স্মৃতির হৃদয় শূন্য- খাঁ খাঁ
হঠাৎ দুপুরে হায় ! অথবা গভীর রাতে স্মৃতিহীন সঙ্গহীন
অকস্মাৎ হৃদয়ে বলক মেরে বলে উঠি ও স্মরণ ! ও স্মরণ!
আমাকে স্মরণ করো আমাকে বরণ করো-
চতুর্দিকে পৃথিবীর প্রতিধ্বনি ধ্বনি তোলে
ধ্বনিদের হাড়-মাংস কথা বলে
স্মরণ তো গেছে বনে – বলো তুমি ও মরণ! ও মরণ!
আমার স্মরণ নাই তাই বলে মৃত্যু আর মরণ কি নাই?
সমুদ্র এসেছে কাছে আমি তাই যেতে চাই
আমার স্মরণ নাই নাই স্মৃতি নাই
পথেরা পথের কাঁধে হাত রেখে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে বলে
যদি যেতে চাও যেতে পার তবে পথ নাই পথ নাই।