ওয়াসার কোপ পড়বে আরও ১৯ সড়কে

এম এ হোসাইন

36

আরও ১৯টি সড়ক কাটবে চট্টগ্রাম ওয়াসা। আগামী মার্চের মধ্যেই এসব সড়কে ওয়াসার কোপ পড়তে পারে। ফলে আপাতত দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না নগরবাসীর। ওয়াসার রোডম্যাপ অনুযায়ী এসব সড়কে বসবে এইচডিপি ও ডকটাইল আয়রন পাইপ। যার জন্য নগরের আরও প্রায় সাড়ে ২২ কিলোমিটার সড়ক কাটতে হবে। তবে এসব সড়কের কিছু ক্ষেত্রে সিটি কর্পোরেশনের আপত্তি আছে বলে জানা গেছে।
মূলত ওয়াসার দুটি প্রকল্পের অধীনে নগরীতে পাইপলাইন স্থাপনের কাজ চলছে। এরমধ্যে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের ফেজ-২ এর অধীনে চলছে ডকটাইল আয়রন পাইপ স্থাপন। ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের অধীনে চলছে এইচডিপি পাইপলাইন স্থাপনের কাজ। এ দুই প্রকল্পের অধীনে ওয়াসার চলমান রাস্তা কাটার মধ্যে আছে চট্টেশ্বরী রোডে (মেডিকেল হোস্টেল গেট) হতে গুলজার মোড় পর্যন্ত ৪০০ মিটার। মোহাম্মদ পুর রোড (হাটহাজারি রোড ১ নং রেল গেট হতে) ৪০০ মিটার, টাইগার পাস মোড় হতে কদমতলী মোড়, নিউ মার্কেট মোড় হয়ে সদরঘাট রোড দারোগা হাট পর্যন্ত ২ দশমিক ৭১ কিলোমিটার।
চলতি মাসে (ডিসেম্বর) শুরু হবে নিউ মার্কেট মোড় হতে কোতোয়ালী মোড়, মহিম দাস রোড় হয়ে বান্ডেল রোড় (হারা চন্দ্র মুন্সেফ লেন পর্যন্ত) ৮৭০ মিটার সড়কে পাইপলাইন স্থাপন কাজ।
যোগাযোগ করা হলে ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ বলেন, পাইপলাইন স্থাপনের কাজ শেষ পর্যায়ে। অল্প কিছু রাস্তা বাকি আছে। কর্পোরেশন অনুমতি দেয়ার পর রাস্তায় কাজ করা হয়। যদি কোন কারণে কর্পোরেশন কাজ বন্ধ রাখতে বলে, তখন বন্ধ রাখা হয়। দুর্ভোগ যেন না হয় সে চেষ্টা করা করা হচ্ছে। আধুনিক প্রযুক্তিতে কাজ করা হচ্ছে।
রাস্তা কেটে পাইপলাইন বসাতে অনুমতির প্রয়োজন হয় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের। কিছু রাস্তার ক্ষেত্রে এখনো মিলেনি সিটি কর্পোরেশনের অনুমতি। এরমধ্যে হাটহাজারী রোড (অক্সিজেন মোড় থেকে মুরাদপুর মোড় পূর্ব পাশ পর্যন্ত মোট ৯০০ মিটার, বাটালি হিল রিজার্ভার হতে টাঙ্কির পাহাড় লেইন পর্যন্ত ৪০০ মিটার, কদমতলী মোড় হতে বাটালি রোড, চৈতন্য গলি রোড় হতে জুবলী রোড হয়ে নন্দন কানন রোড, জেসি গুহ রোড হয়ে নন্দন কানন পর্যন্ত ১ দশমিক ২ কিলোমিটার, হালিশহর আই বøক ১ নং রোড, জে বøক ১ নম্বর রোড, আর্টিলারি রোড় হয়ে এ বøক ১ নংম্বর রোড মোট ৯১০ মিটার, বাদামতলী মোড় থেকে সব্দর আলি রোড হয়ে কমার্স কলেজ রোড় পর্যন্ত ৫৮০ মিটার সড়কের কাজের কাজ করার সম্মতি দেয়নি সিটি কর্পোরেশন।
তাছাড়া নানা প্রতিবদ্ধকতায় এখনো আটকে আছে কয়েকটি সড়কে পাইলাইন স্থাপনের কাজ। এরম্যেধ সিটি কর্পোরেশন হতে আগ্রাবাদ এক্সেস রোড এর মেরামত কাজ সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত পাইপলাইন স্থাপন কাজ শুরু না করতে অনুরোধ করাতে আটকে আছে হালিশহর রোড বেপারী পাড়া মোড় থেকে চৌমুহনি মোড় পর্যন্ত এক কিলোমিটার সড়কের পাইপলাইন স্থাপন কাজ।
জামালখান ওয়ার্ড কাউন্সিলরের অনুরোধে বন্ধ আছে, কাজির দেউড়ি মোড় থেকে এসএস খালেদ রোড় হয়ে জামালখান মোড় পর্যন্ত ৭০০ মিটার সড়কের পাইপলাইন স্থাপন। তাছাড়া আগামী বছরের মার্চে হবে গণি বেকরি মোড় থেকে কেবি আব্দুস সাত্তার রোড়, আলিয়া মাদরাসা রোড়, সিরাজদ্দুউলা রোড়, লালচাঁদ রোড পর্যন্ত মোট ১ দশমিক ২৬ কিলোমিটার।
ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী মাকসুদ আলম বলেন, আমরা রোড ম্যাপ অনুযায়ী রাস্তা কাটার কাজ করছি। কিছু ক্ষেত্রে স্থানীয় কাউন্সিলরের অনুরোধে একটু দেরিতে করা হচ্ছে। তাছাড়া এক্সেস রোডসহ কয়েকটি জায়গায় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে আপাতত কাজ স্থগিত রাখার অনুরোধ আছে। এখন সিটি কর্পোরেশনের সাথে সমন্বয় করেই কাজ করা হচ্ছে। এদিকে এইচডিপি পাইপ স্থাপনের জন্য ওয়াসা কাটবে আরো সাত রাস্তা। এসব রাস্তার মধ্যে ৫টি রাস্তা কাটার জন্য সিটি কর্পোরেশনের অনুমতির অপেক্ষায় আছে ওয়াসা।
অন্যদিকে সাময়িকভাবে কাজ বন্ধ রাখতে সিটি কর্পোরেশনের অনুরোধে বন্ধ রয়েছে একটি সড়কের উভয় পাশে পাইপলাইন স্থাপন কাজ। তবে একটি সড়কে চলমান রয়েছে ওয়াসার পাইপলাইন কাজ। ১ দশমিক ৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে মোহাম্মদপুর রোড সড়কের উভয়পাশে পাইপলাইন স্থাপন করা হচ্ছে। আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের মেরামত কাজের জন্য হালিশহর রোড (বেপারী পাড়া থেকে চৌমুহনী মোড় পর্যন্ত) সড়কের উভয় পাশে পাইপলাইন স্থাপন কাজ শুরু করেনি ওয়াসা।
এছাড়া সিটি কর্পোরেশনের অনুমতির সাপেক্ষে রাস্তা কাটার অপেক্ষায় আছে ৫টি সড়কের। এসব সড়কের মধ্যে আছে দেওয়ানহাট মোড় থেকে টাইগার পাস ওভার ব্রিজের আগ পর্যন্ত সড়কের উভয় পাশে ৪০০ মিটার, দেওয়ান হাট থেকে চৌমুহনি পর্যন্ত সড়কের উভয় পাশে ১ দশমিক ৩ কিলোমিটার, বাদামতলি থেকে বারিক বিল্ডিং পূর্ব পাশ পর্যন্ত সড়কের ৭টি পয়েন্টে টি জয়েন্ট, কমার্স কলেজ সড়কের উভয় পাশ ২ কিলোমিটার, হাটহাজারি রোড়ের (হাশেম নগর থেকে মুরাদপুর মোড়) সড়কের উভয় পাশ্বে ১ দশমিক ৪৪ কিলোমিটার সড়ক।