থানায় মামলা

ওমান প্রবাসীর কাছে ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

12

নগরীর বায়েজিদ এলাকায় এক প্রবাসী ব্যবসায়ীর কাছ থেকে একদল দুর্বৃত্ত ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অনন্যা আবাসিক এলাকায় ওমান প্রবাসী আলহাজ্ব মো. জসিম উদ্দিন ও তার বড় ভাই রেজাউল করিম একটি ভবন নির্মাণের প্রস্তুতি নিলে এলাকার সন্ত্রাসীরা এ চাঁদা দাবি করেন। তারা চাঁদা না দিলে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে ওই ব্যবসায়ী থানায় মামলা করেছেন।
মামলার বাদি জসিম উদ্দিন জানান, বায়েজিদ বোস্তামী থানার অনন্যা আবাসিক এলাকায় তিনি এবং তার বড় ভাই মিলে ২০০০ সালের ১৪ আগস্ট ৪৭৩৭ নং কবলামূলে একটি জায়গা ক্রয় করেন। ওই জায়গায় একটি ভবন নির্মাণের জন্য গত ৪ মার্চ মাটি ভরাট করতে গেলে এলাকার একদল সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ আমার শ্রমিকদের কাজ করতে বাধা দেয় এবং মারধর করে। এতে ৫ জন শ্রমিক আহত হয়। তিনি জানান, একই দিন ওই সন্ত্রাসীরা তার মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে ভবন নির্মাণ করতে হলে তাদের ৫০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে বলে মোবাইলে হুমকি দেয়।
জসিম উদ্দিন বাদি হয়ে বায়েজিদ বোস্তামী থানার কুলগাঁও এলাকার আব্দুল হাকিমের পুত্র সুলতান আলম ও অনন্যা আবাসিক এলাকার বাদামতলের মোহাম্মদ ইসলামের পুত্র ওমর ফারুকসহ অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীদের আসামি করে মামলা দায়ের করেন। এ সন্ত্রাসী গ্রæপটি পুরো অন্যান্যা আবাসিক এলাকা ও অক্সিজেন-কাপ্তাই সড়ক এলাকার বাসিন্দাদের চাঁদা দিতে বাধ্য করে এবং এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে জনগণকে জিম্মি করে রাখে বলে অভিযোগ রয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক নয়ন বড়ুয়া বলেন, মামলার পর ঘটনা তদন্ত করে প্রাথমিকভাবে সত্য প্রমাণিত হওয়ায় বিজ্ঞ আদালতে নন এফ.আই.আর দাখিল করেছি।
এদিকে মামলার পর আসামিরা বাদিকে মামলা তুলে নিতে এবং চাঁদা দেওয়ার জন্য হত্যার হুমকি দিচ্ছে।
উল্লেখ্য, ওমান প্রবাসী আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন বঙ্গবন্ধু পরিষদ ওমান কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
এ ব্যাপারে গতকাল রাতে বায়েজিদ বোস্তামি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রিন্টন সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। সত্যতা পাওয়া গেলে আসামিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।