চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানের হুঁশিয়ারি

এসএসসিতে বেআইনি কাজ করলে ব্যবস্থা

12

মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান বা দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক বেআইনি কাজ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল আলীম। গতকাল সোমবার চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড মিলনায়তনে এসএসসি পরীক্ষা নিয়ে কেন্দ্র সচিবদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।
প্রফেসর আবদুল আলীম বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রতিষ্ঠান প্রধান, শিক্ষক বেআইন কাজে জড়িত থাকলে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনে পরীক্ষা বাতিলের মতো সিদ্ধান্ত নেবে শিক্ষাবোর্ড। তিনি বলেন, পাবলিক পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করা একটি টিম ওয়ার্ক। টিমের কেউ অনিয়মের সঙ্গে জড়িয়ে গেলে পুরো পরীক্ষা কার্যক্রম প্রশ্নবিদ্ধ হয়। তাই সবাইকে প্রশ্নপত্র খোলা, বিতরণ, উত্তরপত্র সংগ্রহসহ পরীক্ষা সংক্রান্ত সব কাজ সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে। যার যে কাজ, তাকে সে কাজ গুরুত্ব দিয়ে করতে হবে। পাবলিক পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করতে কেন্দ্র সচিবদের ভূমিক অগ্রগণ্য। এ ক্ষেত্রে কোনো অনিয়ম, অবহেলা শিক্ষাবোর্ড সহ্য করবে না। যারাই অনিয়মের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে চাকরি থেকে বরখাস্তসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নারায়ণ চন্দ্র নাথ বলেন, এসএসসি পরীক্ষা চালাকালীন প্রতিটি কেন্দ্র নকলমুক্ত রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে সেট কোড পাওয়ার পর প্রশ্নপত্র খুলতে হবে। রচনামূলক এবং বহুনির্বাচনী অংশের প্রশ্নপত্র পরীক্ষার্থীদের একসঙ্গে দেওয়া যাবে না। তিনি বলেন, পরীক্ষাকেন্দ্রের প্রতিটি কক্ষে যাতে সমন্বয় থাকে, সেজন্য পরীক্ষা শুরুর ২ দিন আগে সব কক্ষ পরিদর্শকদের নিয়ে প্রশিক্ষণ সভা করতে হবে। ট্রেজারি শাখা থেকে প্রশ্ন কেন্দ্রে নেওয়া, কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র খোলা থেকে সমস্ত কাজে যাতে সমন্বয় থাকে তা নিশ্চিত করতে হবে। আপনাদের একটি ভুল পরীক্ষার্থীদের জন্য ভয়াবহ বিপদ ডেকে আনতে পারে। পরীক্ষা বাতিলের মতো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে। তাই দায়িত্বপালনে শতভাগ আন্তরিক হতে হবে।
সভায় চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের কলেজ পরিদর্শক প্রফেসর মো. জাহেদুল হক, বিদ্যালয় পরিদর্শক ড. বিপ্লব গাঙ্গুলী, উপ-পরিচালক হিসাব ও নিরীক্ষা তাওয়ারিক আলমসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। খবর বাংলানিউজের