একুশের শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ

পূর্বদেশ ডেস্ক

28

একুশে ফেব্রূয়ারি যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে জাতি। এদিন একুশের শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ ও তাদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সরকারি-বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ। এছাড়া আয়োজন করা হয় ব্যাপক কর্মসূচি।
একুশের প্রথম প্রহরে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শহীদ বেদিতে প্রথমে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। এরপর ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও কাউন্সিলররা। একই সঙ্গে তিনি নগর আওয়ামী লীগের পক্ষেও শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন। এ সময় আসন্ন চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরীও উপস্থিত ছিলেন।
দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ : মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেন, বাঙালি জাতির প্রেরণার প্রতীক একুশে ফেব্রূয়ারি। স্বাধীনতা সংগ্রামের শুরুটা হয়েছিল মূলত একুশে ফেব্রূয়ারি। এরই ধারাবাহিকাতায় আমরা নিজস্ব মাতৃভাষা পেয়েছি, একটি স্বাধীন সার্বভৌমত্ব রাষ্ট্র পেয়েছি।
২১ ফেব্রূয়ারি সকাল ৯টায় সংগঠনের আন্দকিল্লাস্থ কার্যালয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন থেকে ৭১ এর মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধুহত্যা পরবর্তী স্বৈরাচার এবং সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেশ ও জনগণের জন্য নাম জানা-অজানা শহীদদের জীবন দানের মধ্যদিয়ে রচিত বিশাল অহংকারের উত্তরাধিকার আমরা বহন করছি। তাই আমাদের জাতীয় কর্তব্যকে কখনোই অবহেলা করা যাবে না। একুশ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পাওয়ায় আমাদের বাঙালি সংস্কৃতির সম্মানবৃদ্ধি পেয়েছে। একই সাথে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিই বিশ্বসমাজ কর্তৃক ধীকৃত হয়েছে।
সভায় দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, বাংলা আমাদের মাতৃভাষা, এ ভাষার জন্য জীবন দিয়েছেন অনেকেই। শেখ হাসিনা সরকার বাংলা ভাষাকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার মর্যাদায় উন্নীত করেছে। সাম্প্রদায়িক জঙ্গীবাদ অপশক্তির বিরুদ্ধে একুশ আমাদের পথ দেখায়, প্রেরণা যোগায়। এ কারণেই আমরা বার বার জয়ী হই, জয়ী হবো।
সভায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি আবুল কালাম চৌধুরী, এম আবু সাঈদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহাজাদা মহিউদ্দিন, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. মির্জা কছির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. জহির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ দাশ, শ্রম সম্পাদক খোরশেদ আলম, দপ্তর সম্পাদক আবু জাফর, শিক্ষা সম্পাদক বোরহান উদ্দিন এমরান, ধর্ম সম্পাদক আবদুল হান্নান চৌধুরী মঞ্জু, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক এড. কামরুন নাহার, প্রচার সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরী, কৃষি সম্পাদক এড. আবদুর রশিদ, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক আবদুল মতিন চৌধুরী, বন বিষয়ক সম্পাদক এড. মুজিবুল হক, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য দেবব্রত দাশ, মোস্তাক আহমদ আঙ্গুর, সৈয়দুল মোস্তফা চৌধুরী রাজু, এম ছিদ্দিক আহমদ, মাহবুবুর রহমান শিবলী, আওয়ামী লীগ নেতা মৌলভী নুর হোসেন, মাহফুজুর রহমান মেরু, শামসুল ইসলাম, নাছির উদ্দিন, চৌধুরী আবুল কালাম প্রমুখ।
এ আগে সকাল ৭টায় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে একুশের ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।
এমএ লতিফ এমপি : ২১ ফেব্রূয়ারি শহীদ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে সকালে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান এমএ লতিফ এমপি। এরপর সাবেক সিটি মেয়র ‘চট্টলবীর’ এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সমাধীতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান তিনি।
এছাড়া আগ্রবাদস্থ পুরাতন চেম্বার হাউস মিলনায়তনে বেলা ১১টায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার সভাপতি এমএ লতিফ এমপি বলেন, ২১ মানে মাথা নত না করা- এ শিক্ষায় অন্যায়ের কাছে মাথা নত না করে আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান দেখাতে হবে। আওয়ামী পরিবারের প্রার্থীদের বিজয়ী করার মাধ্যমে দেশ পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মাহাবুবুল হক মিয়া, মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল হক এটলি, ৩০ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন ইবনে আহম্মদ, প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা ও কাউন্সিলর প্রার্থী আতাউল্ল্যাহ চৌধূরী, ৪১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ সভাপতি সালেহ আহম্মেদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর হাসান, ৪০ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল বারেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চৌধুরী আজাদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলী আকবর, ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক কাউন্সিলর মো. আসলাম, সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম, ৩৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ চৌধুরী, ৩৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হোসেন মুরাদ, ৩৬ নং ওয়ার্ড ইউনিট আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান চৌধুরী, ৩০ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সানাউল্লাহ, ৪০ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সালাউদ্দিন, লবণ শ্রমিক লীগের সভাপতি আব্দুল মতিন মাস্টার, সহ সভাপতি ফারুক মোল্লা, বন্দর ব্যবহারকারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ইমাম হোসেন, মহানগর ছাত্রলীগের সহ সভাপতি ইমতিয়াজ বাবলা, সহ সম্পাদক মো. আরিফ, সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন, কমিউনিটি পুলিশ ডবলমুরিং থানার সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক এমরান, স্বাধীনতা নারী শক্তির পরিচালক অধ্যাপিকা বিবি মরিয়মসহ নগর ও চট্টগ্রাম-১১ আসনের আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতাকর্মীরা।
মহানগর বিএনপি : মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেন, অধিকার আদায় এবং অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হতে ভাষা শহীদগণ আমাদের প্রেরণার উৎস। মাতৃভাষার জন্য জীবন উৎসর্গ করে তারা আত্মত্যাগের যে গৌরবদীপ্ত দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেছেন, পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে তা আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করেছে। তাদের আত্মত্যাগের ধারাবাহিকতায় গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পথ বেয়ে আমরা অবতীর্ণ হয়েছি স্বাধীনতা যুদ্ধে। প্রতিষ্ঠিত করেছি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।
তিনি বলেন, অধিকারবোধের চেতনা পরিপূর্ণতা দান করেছিল মহান ২১ ফেব্রূয়ারি। সেই চেতনা নস্যাৎ করে একদলীয় শাসনের জগদ্দল পাথর আজ জনগণের কাঁধের ওপর চাপানো হয়েছে। মধ্যরাতের নির্বাচনে ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে জনগণকে প্রতারিত করা হয়েছে। গণতন্ত্রকে সমাহিত করে এ দুঃশাসন দীর্ঘায়িত করতে অবৈধ শক্তির জোরে সাজানো মিথ্যা মামলায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে বন্দি করে প্রতিহিংসা চরিতার্থ করা হয়েছে।
তিনি ২১ ফেব্রূয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মহানগর বিএনপির প্রভাতফেরির মাধ্যমে শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, একুশের চেতনার উত্তরাধিকারী হয়ে দেশের সংগ্রামী মানুষকে সাথে নিয়ে আমরা স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব সুরক্ষা ও গণতন্ত্র পুনরুজ্জীবিত করতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবোই।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সহসভাপতি এমএ আজিজ, নাজিমুর রহমান, নিয়াজ মো. খান, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক এসএম সাইফুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক কাজী বেলাল উদ্দিন, শাহ আলম, ইস্কান্দার মির্জা, ইয়াসিন চৌধুরী লিটন, আবদুল মান্নান, কাউন্সিলর আবুল হাশেম, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল, আনোয়ার হোসেন লিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুর আলম চৌধুরী মঞ্জু, কামরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক শিহাব উদ্দিন মুবিনসহ মহানগর, থানা ও ওয়ার্ড বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।