একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন তফসিল ঘোষণা আজ

পূর্বদেশ ডেস্ক

19

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল আজ (বৃহস্পতিবার) ঘোষণা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে তফসিল ঘোষণা করবেন তিনি। তার আগে বেলা ১১টায় কমিশন সভা বসবে।
গতকাল বুধবার বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তার ওই ভাষণ বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে একযোগে স¤প্রচার করা হবে বলে নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন।
এদিকে বিরোধীদলীয় জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার তারিখ পেছানোর দাবি জানিয়ে আসছে।
ঐক্যফ্রন্ট গত সোমবার ইসির সঙ্গে বৈঠক করে তফসিল পেছানোর দাবি করে। কারণ হিসেবে তারা বলছে, সরকারের সঙ্গে সংলাপ চলছে। এর ফলাফল দেখে তফসিল ঘোষণা করা যেতে পারে।
অপরদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আপত্তি জানালেও আজ একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে সমর্থন জানিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।
সংলাপ চললেও রাজনৈতিক মতবিভেদ জিঁইয়ে থাকার মধ্যে আজ একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা।
গতকাল বুধবার নির্বাচন ভবনে গিয়ে সিইসিসহ নির্বাচন কমিশনারদের সঙ্গে দেখা করে নিজেদের অবস্থান জানায় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। ১৬ সদস্যের এই দলের নেতৃত্বে ছিলেন দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম।
আওয়ামী লীগের আগে বিভিন্ন দল ইসিতে গিয়ে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে এসেছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, বাম গণতান্ত্রিক জোট সংলাপ শেষ না হওয়া পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা না করার আহŸান জানিয়েছে। অন্যদিকে তফসিল না পেছানোর দাবি জানিয়েছে জাতীয় পার্টি ও যুক্তফ্রন্ট।
ইসিতে বৈঠকের পর এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের বলেন, তফসিলের বিষয়ে ইসি যে সিদ্ধান্ত নেবে তার প্রতি তাদের সমর্থন রয়েছে।
নির্বাচন কবে হবে, তফসিল ঘোষণার সেই এখতিয়ার কেবল নির্বাচন কমিশনের। আমরা তাদের বলেছিল, এ ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের সমর্থন রয়েছে।
ইসির সঙ্গে বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কয়েক নেতার আচরণের নিন্দাও জানান আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম।
ইসির সঙ্গে বিভিন্ন দলের বৈঠক তুলে ধরে তিনি বলেন, একমাত্র ব্যতিক্রম ঘটিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, যাদের মধ্য অনিবন্ধিত দলও ছিল। তাদের কেউ কেউ ইসির সঙ্গে অমার্জিত আচরণ করেছেন, আঙুল তুলে হুমকি দিয়েছেন।পূর্বদেশ ডেস্ক
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল আজ (বৃহস্পতিবার) ঘোষণা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে তফসিল ঘোষণা করবেন তিনি। তার আগে বেলা ১১টায় কমিশন সভা বসবে।
গতকাল বুধবার বিকেলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তার ওই ভাষণ বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বেতারে একযোগে স¤প্রচার করা হবে বলে নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন।
এদিকে বিরোধীদলীয় জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার তারিখ পেছানোর দাবি জানিয়ে আসছে।
ঐক্যফ্রন্ট গত সোমবার ইসির সঙ্গে বৈঠক করে তফসিল পেছানোর দাবি করে। কারণ হিসেবে তারা বলছে, সরকারের সঙ্গে সংলাপ চলছে। এর ফলাফল দেখে তফসিল ঘোষণা করা যেতে পারে।
অপরদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আপত্তি জানালেও আজ একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাকে সমর্থন জানিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।
সংলাপ চললেও রাজনৈতিক মতবিভেদ জিঁইয়ে থাকার মধ্যে আজ একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা।
গতকাল বুধবার নির্বাচন ভবনে গিয়ে সিইসিসহ নির্বাচন কমিশনারদের সঙ্গে দেখা করে নিজেদের অবস্থান জানায় আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল। ১৬ সদস্যের এই দলের নেতৃত্বে ছিলেন দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম।
আওয়ামী লীগের আগে বিভিন্ন দল ইসিতে গিয়ে নিজেদের অবস্থান জানিয়ে এসেছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, বাম গণতান্ত্রিক জোট সংলাপ শেষ না হওয়া পর্যন্ত তফসিল ঘোষণা না করার আহবান জানিয়েছে। অন্যদিকে তফসিল না পেছানোর দাবি জানিয়েছে জাতীয় পার্টি ও যুক্তফ্রন্ট।
ইসিতে বৈঠকের পর এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের বলেন, তফসিলের বিষয়ে ইসি যে সিদ্ধান্ত নেবে তার প্রতি তাদের সমর্থন রয়েছে।
নির্বাচন কবে হবে, তফসিল ঘোষণার সেই এখতিয়ার কেবল নির্বাচন কমিশনের। আমরা তাদের বলেছিল, এ ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের সমর্থন রয়েছে।
ইসির সঙ্গে বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কয়েক নেতার আচরণের নিন্দাও জানান আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম।
ইসির সঙ্গে বিভিন্ন দলের বৈঠক তুলে ধরে তিনি বলেন, একমাত্র ব্যতিক্রম ঘটিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, যাদের মধ্য অনিবন্ধিত দলও ছিল। তাদের কেউ কেউ ইসির সঙ্গে অমার্জিত আচরণ করেছেন, আঙুল তুলে হুমকি দিয়েছেন।

বিশৃঙ্খলা হলে
ব্যবস্থা নেবে
নির্বাচন কমিশন
নির্বাচন নিয়ে রাজনৈতিক বিরোধের অবসান না ঘটায় তফসিলকে কেন্দ্র করে যে কোনো ধরনের গোলযোগ এড়াতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েন। ইসি সচিব বলেন, তফসিল ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও ইসির অধীনে থাকবে। তখন বিশৃঙ্খলা হলে তা মোকাবেলায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেওয়া হবে।
ইসির সঙ্গে আলোচনার পর বিএনপির আন্দোলন নিয়ে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের বলেন, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের দায়িত্ব পালন করবে। নির্বাচন কমিশন তাদের বিষয়টি দেখবে; সাধারণ মানুষ তা মোকাবেলা করবে।
এদিকে তফসিল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে র‌্যাব গতকাল বুধবার থেকেই সারাদেশে তাদের টহল জোরদার করেছে বলে বাহিনীর মুখপাত্র মুফতি মাহমুদ খান জানিয়েছেন।
২০১৪ সালে দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বিএনপি ভোট ঠেকানোর হুমকি দিয়েছিল। তখন সহিংসতায় প্রাণহানির পাশাপাশি অনেক ভোটকেন্দ্র পোড়ানো হয়েছিল। এক প্রশ্নের জবাবে হেলালুদ্দীন বলেন, তফসিল ঘোষণার ব্যাপারে আমাদের শতভাগ প্রস্তুতি রয়েছে। সব দল অংশ নেবে আশা ইসির এবং সব দলের জন্য ক্ষেত্র প্রস্তুত রয়েছে।
ইসি সচিব জানান, বৈঠকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ইসিকে ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্তে অটল থাকতে বলেছে। তিনি বলেন, ইসি যেন সংবিধান ও আইন মেনে কাজ করতে পারে, সেক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা আচরণ বিধিমালা মেনেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন।
বিতর্কিত প্রতিষ্ঠানের বিতর্কিত কর্মকর্তাদের যেন ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া না হয়, সেই আহ্বান আওয়ামী লীগ রেখেছে বলে জানান হেলালুদ্দীন।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে নাগরিক ঐক্যের নেতা মাহমুদুর রহমান মান্নার তর্কাতর্কিকে কেন্দ্র করে অনিবন্ধিত দলের সঙ্গে সংলাপ না করার পরামর্শও দেওয়া হয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে।
হেলালুদ্দীন বলেন, অনিবন্ধিত দলের সঙ্গে সংলাপ না করার পরামর্শ দিয়েছে আওয়ামী লীগ। বিষয়টি আপনাদের অবহিত করলাম। উনারা (আওয়ামী লীগ) পরামর্শ দিয়েছে। তবে কার সঙ্গে সংলাপ করবে না করবে, সে সিদ্ধান্ত নেবে কমিশনই।
তিনি জানান, বুধবারের পর ইসি যাতে আর কোনো দলের সঙ্গে নতুন করে সংলাপে বসে, সে বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে।
আজ মনোনয়নপত্র যাচ্ছে জেলায় জেলায় : একাদশ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পাশাপাশি আজ বৃহস্পতিবার জেলা পর্যায়ে মনোনয়নপত্রসহ নির্বাচন সামগ্রী পাঠানোর প্রস্তুতি নিয়েছে ইসি।
ইসির সহকারী সচিব সৈয়দ গোলাম রাশেদ সব জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠিয়েছেন। তফসিল ঘোষণার প্রস্তুতির অন্যতম