একই পরিবার থেকে দেশের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন যারা

7

তামিম ইকবালের হাত ধরে বাংলাদেশ পেতে যাচ্ছে ১৩তম ওয়ানডে অধিনায়ক। নিয়মিত অধিনায়ক মাশরাফির ইনজুরি, সহ-অধিনায়ক সাকিবের বিশ্রামে শ্রীলঙ্কা সিরিজে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন তামিম। টিম ম্যানেজমেন্ট আর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তামিমের উপরই আস্থা রেখেছে।
তামিম উঠে এসেছেন চট্টগ্রামের বনেদি এক ক্রীড়া পরিবার থেকে। এমন এক পরিবার, যেখানে বাবা ইকবাল খান ছিলেন জনপ্রিয় ফুটবল তারকা, চাচা বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের আইসিসি ট্রফিজয়ী সাবেক অধিনায়ক। চাচার হাত ধরে তামিমের বড় ভাই নাফিস ইকবাল খানও খেলেছেন জাতীয় দলে, ছিলেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের দলপতি। জাতীয় দলকে এই প্রথমবার ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিতে যাওয়া তামিম ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিতই অধিনায়ক ছিলেন। ছিলেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, বিপিএলের অধিনায়ক। তামিমের চাচা আকরাম খানও ছিলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক। বন্দরনগরী চট্টগ্রামের সম্ভ্রান্ত পরিবারের দুই সদস্য জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেলেন। বাংলাদেশ ক্রিকেটে যা এই প্রথমবার। তবে, ২০১৬-১৭ মৌসুমে টেস্টে তামিম জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে একটি ম্যাচেই মাত্র অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পালন করেন তামিম, ম্যাচটি হেরেছিল বাংলাদেশ। আকরাম খান (১৯৯৫-৯৮) জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক ছিলেন। তার অধীনে বাংলাদেশ খেলেছে ১৫টি ওয়ানডে, যেখানে জিতেছিল ১টি ম্যাচ আর ১৪টি ম্যাচ হেরেছিল বাংলাদেশ। ভারতের ইফতিখার আলি খান পাতৌদি এবং তার ছেলে মনসুর আলি খান পাতৌদি টেস্টের অধিনায়ক ছিলেন। ভারতের গুরগাঁও জেলার শহর পাতৌদির অষ্টম নবাব ছিলেন ইফতিখার আলি খান পতৌদি। ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ডে লেখাপড়া করা সিনিয়র পাতৌদি ইংল্যান্ড ও ভারত উভয় দলেই খেলেছিলেন। ১৯৩২ সালে ইংল্যান্ডের হয়ে অভিষেক টেস্টে ১০২ রান করা ইফতিখার পাতৌদি ১৯৪৬ সালে ভারতের ইংল্যান্ড সফরে ভারতের জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।