উত্তর কোরিয়ায় ওষুধ পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া

9

উত্তর কোরিয়ায় সোয়াইন ফ্লু মোকাবিলার জন্য ওষুধ পাঠাতে দক্ষিণ কোরিয়াকে সহায়তায় রাজি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। পারমাণবিক আলোচনা স্থবির হয়ে থাকা সত্ত্বেও উত্তর কোরিয়ায় মানবিক সহায়তা পাঠাতে যুক্তরাষ্ট্র সহযোগিতার ঘোষণা দেওয়ার পরই এ সিদ্ধান্ত জানানো হলো। ২০০৯ সালে এইচওয়ানএনওয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর উত্তর কোরিয়ায় ৫ লাখ ডোজ তামিল ফ্লু ওষুধ পাঠিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া। এটি সোয়াইন ফ্লু নামেও পরিচিত। এ বছরের জানুয়ারিতে রেডক্রস জানায়, ৮১ হাজার উত্তর কোরীয় নাগরিক ওই একই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।
উত্তর কোরিয়ায় নিয়োজিত বিশেষ মার্কিন প্রতিনিধি স্টিফেন বাইগুন বুধবার আলোচনার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ায় যান। সেসময় তিনি জানান, উত্তর কোরিয়ার মানুষদেরকে কিভাবে ‘যথাযথ সহায়তা’ দেওয়া যাবে, বিশেষ করে শীতকালে সহায়তা দেওয়া যাবে তা নিয়ে ত্রাণ সংস্থাগুলোর সঙ্গে কথা বলবেন। কোরীয় শান্তি ও নিরাপত্তাবিষয়ক দক্ষিণ কোরীয় প্রতিনিধি লী দো হুন বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ায় সোয়াইন ফ্লু এর ওষুধ তামিল ফ্লু পাঠাতে সম্মত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘উত্তর কোরিয়ার জনগণের জন্য তামিল ফ্লু পাঠানোর বিষয়টির সুরাহা হয়েছে।’ গত জুনে সিঙ্গাপুরে ঐতিহাসিক বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন। ওই বৈঠকে তারা কোরীয় উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করতে সম্মত হন। তবে বেশ খানিকটা সময় পেরিয়ে গেলেও দুই পক্ষের মধ্যে খুব একটা অগ্রগতি হয়নি। পারমাণবিক সমঝোতা নিয়ে বৃহস্পতিবার নতুন করে সংশয় জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া। রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচি বাতিলজনিত যেকোনও চুক্তির ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের ‘পারমাণবিক হুমকি’ বিলোপের প্রসঙ্গটিও থাকতে হবে।
যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে যখন পারমাণবিক চুক্তি নিয়ে অচলাবস্থা চলছে, তখন দক্ষিণ কোরিয়া তার পুরনো শত্রু উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে মনযোগ দিয়েছে। দেশটির সঙ্গে পরিবহন ও মানবিক সহায়তাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সংযোগ প্রতিষ্ঠার জন্য পদক্ষেপ নিচ্ছে তারা। উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের সঙ্গে আগামী জানুয়ারি কিংবা ফেব্রুয়ারিতে দ্বিতীয় বৈঠক হতে পারে বলে আগেই জানিয়ে রেখেছেন ট্রাম্প। তবে গত সপ্তাহে টুইটার পোস্টে ট্রাম্প বলেছেন, এ ব্যাপারে তার তাড়া নেই।