ঈদগাঁহে উদ্ধার করা মাথার খুলি নিখোঁজ ইব্রাহিমের

5

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁহ-ইসলামপুর ইউনিয়নের গহীন অরণ্য থেকে উদ্ধার করা অঙ্গ প্রত্যঙ্গগুলো লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী লাইল্যারমার পাড়া এলাকার ফরিদুল আলমের ছেলে ইব্রাহিমের বলে তার পরিবার নিশ্চিত করেছে।
বাবা ফরিদুল আলম জানান, ঘটনাস্থলের আশপাশ থেকে উদ্ধার করা শার্ট ও লুঙ্গি এবং সেন্ডেল দেখে শনাক্ত করা হয় সে তার ছেলের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ। সে বিয়ে করছিল ইসলামাবাদ ইউনিয়নের পশ্চিম গজালিয়া গ্রামের মমতাজুল হকের মেয়ে শামিমা আক্তারকে। স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমের বাধা, সংসারে অশান্তি সৃষ্টি হওয়ায় পিত্রালয়ে চলে আসে শামিমা আক্তার। কয়েকদিন পর বিচার সালিশের কথা বলে শ্বশুরবাড়ির লোকজন ইব্রাহীমকে সুকৌশলে ডেকে এনে পরিকল্পিতভাবে গহীন অরণ্যে নিয়ে হত্যা করে ও লাশ গুম করেন বলে কান্নাজড়িত কন্ঠে জানান ছেলের বাবা ফরিদুল আলম। ঐ ঘটনায় পরদিন লামা থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরিও করেছিল বাবা। এদিকে তার লাশের অংশবিশেষ ও অঙ্গ প্রত্যঙ্গ উদ্ধারের পর শ্বশুর মমতাজ প্রকাশ বলি মমতাজ নিজেদের বাঁচার জন্য নানা ফিকির ফন্দি শুরু করেছে বলে জানান ইব্রাহীমের পিতা ফরিদুল আলম।
উল্লেখ্য, ফরিদুল আলমের গ্রামের বাড়ি ইসলামাবাদ ইউনিয়নের খোদাই বাড়ি ওয়াহেদর পাড়া সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল হকের বাড়ির পাশে ছিল। দীর্ঘদিন আগে পরিবার নিয়ে লামা উপজেলার ফাঁসিয়া খালী গ্রামে চলে যায়।