ঈদগাঁওতে বনবিভাগের জায়গায় অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ

কক্সবাজার প্রতিনিধি

7

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও-ইসলামপুর ইউনিয়নে বনবিভাগের জায়গা দখল করে পাহাড় কেটে পাকা বাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু করেছে এক জনপ্রতিনিধি। ইউনিয়নের নতুন অফিস রিফাত সড়কে বনবিভাগের জায়গা দখল ও সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করে এমনতর কাজ করা হচ্ছে বলে জানা গেছে। জানা যায়, ইউনিয়নের ইসলামপুর নতুন অফিস রিফাত সড়কে স্থানীয় ইউপি মেম্বার ওবাইদুল হক বনবিভাগের বিশাল জায়গা অবৈধভাবে দখল করে পাহাড় কেটে পাকাবাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু করেন। দিনদুপুরে প্রকাশ্যে অর্ধ শতাধিক নির্মান শ্রমিক দিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। দিন দুপুরে প্রকাশ্যে এ জনপ্রতিনিধির আস্করা দেখে সরকার দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতারা জানান, বনবিভাগের অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যনেজ করে একটি চক্র বনভুমির জায়গা দখলে প্রতিযোগিতায় নেমছে। এছাড়াও কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের নাপিতখালী বনবিটের আওতায় অধিকাংশ জমি সরকারের বেদখলে চলে যাচ্ছে বলে জানান তারা। এতে করে সংশ্লিষ্ট বনবিভাগের সবুজ বনাঞ্চল নিধন হয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে পাহাড় কেটে সমতল ভুমিতে পরিনত করা হচ্ছে। যার কারণে দিনদিন পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে। এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত মেম্বার ওবাইদুল হকের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। বিটকর্মকর্তা আবুল কালামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বনবিভাগের জায়গা দখল করে পাহাড় কাটা ও স্থাপনা নির্মাণের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন আমরা খবর পেয়ে পরিদর্শনে গিয়ে দেখি কিছু দিন ধরে মেম্বার স্থাপনার কাজ করছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে। স্থানীয় হেডম্যান শফিউল আলম ঘটনার কথা স্বীকার করে স্থাপনা বন্ধ করার জন্য কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। তবে এলাকাবাসির অভিযোগ বনবিভাগের লোকজন দফায় দফায় ঘটনাস্থলে গেলেও এখনো বন্ধ করা হয়নি পাহাড় কাটা ও অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ। তারা উর্ধবতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।