ই-নামজারি ও ভূমির মালিকানা প্রদানের মাধ্যমে ভূমি সেবা সপ্তাহের শুরু

পূর্বদেশ ডেস্ক

26

রাঙামাটিতে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বুধবার দুপুরে সদর উপজেলা ভূমি অফিস থেকে একটি বর্ণঢ্য র‌্যালি বের হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ‘রাখবো র্নিভেজাল জমি বাড়ি, করবো সবাই নামজারি’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ভূমি সেবা সপ্তাহ উদযাপিত হচ্ছে।
রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে বর্ণাঢ্য র‌্যালিতে জেলা প্রশাসনের অধীনস্থ সকল কর্মকর্তা কর্মচারিসহ বিভিন্ন পেশার লোকজন ভূমি সেবা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভায় অংশ গ্রহণ করেন।
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো.নজরুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম শফি কামাল ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(আইসিটি) শারমিন আলম।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বলেন, সারা দেশের ন্যায় ইতি মধ্যে ডিজিটালাইজের মাধ্যমে জমি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম ঘরে বসেই সেবা নিতে পারবেন সাধারণ মানুষ। এ ছাড়াও অনলাইনের মাধ্যমে এখন থেকে ভূমি অফিসের সকল সেবা পাওয়া যাবে। জমি রেজিস্ট্রারিসহ সকল কার্যক্রম অনলাইনের মাধ্যমে করা সম্ভব বলে জানান এই কর্মকর্তা। পরে প্রধান অতিথি ভূমি সপ্তাহ উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।
রাঙ্গুনিয়া : ভূমি ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা ও জনসাধারণের মাঝে ভ‚মি অধিকার সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং গতিশীলতা আনার লক্ষ্যে রাঙ্গুনিয়ায় ভূমি সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে উপজেলা সদরে আয়োজিত র‌্যালি শেষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন রাঙ্গুনিয়া উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) পূর্বিতা চাকমা। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা স্বপন কুমার দে, ইউপি চেয়ারম্যান আহমদ ছৈয়দ তালুকদার, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আবুল কাশেম চিশতি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খায়রুল বশর মুন্সি, রাঙ্গুনিয়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জিগারুল ইসলাম জিগার, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সোনিয়া শফি, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ম্যানেজার রাশেদা বেগম প্রমুখ। সভায় জানানো হয় আগামী সপ্তাহ থেকে রাঙ্গুনিয়া ভূমি কার্যালয়ে শুরু করা হবে ই-নামজারি। কোন মধ্যস্বত্বভোগীর খপ্পরে না পড়ে সাধারণ মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে সেবা নিতে পারেন সেই উদ্যোগ নেয়া হবে।
চকরিয়া : ‘রাখব নিস্কণ্টক জমি বাড়ি, করব সবাই ই-নামজারি’ ও ‘আশ্রয়ণের অধিকার শেখ হাসিনার উপহার’ এ দুইটি প্রতিপাদ্যকে বাস্তবে রূপ দিতে কক্সবাজারের চকরিয়ায় শুরু হয়েছে ভূমি সেবা সপ্তাহ। সেবা সপ্তাহের প্রথম দিনে উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ভূমিহীন ৩৩টি পরিবারকে কৃষি খাসজমি বন্দোবস্তির দলিল ও নামজারি খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়। চকরিয়া উপজেলা ভূমি অফিস গতকাল বুধবার (১০ এপ্রিল) বিকালে উপজেলা পরিষদের হলরুম মোহনায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। উপজেলা ভুমি অফিস সূত্র জানায়, পর্যায়ক্রমে উপজেলার কাকারা, লক্ষ্যারচর ও হারবাং ইউনিয়নের কৃষি খাসজমি বন্দোবস্তপ্রাপ্ত ভূমিহীন পরিবার গুলোর মধ্যে দলিল ও নামজারি খতিয়ান হস্তান্তর করা হবে।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) খোন্দকার মোহাম্মদ ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাতের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ভূমি সেবা সপ্তাহ এর প্রথম দিনে বক্তব্য রাখেন, চকরিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এ কে এম গিয়াস উদ্দিন, চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আতিক উল্লাহ, চকরিয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক এম আর মাহমুদ, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফরিদুল আলম, বিএমচর ইউনিয়নের (ইউপি) চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, ভূমি বন্দোবস্ত কমিটির সদস্য আলহাজ্ব সেলিম উল্লাহ ও মুজিবুর রহমান প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, জমিদার প্রথা উচ্ছেদ করে প্রজাস্বত্ব আইন হলেও ব্যক্তি মালিকানাধীন জমির ভেতরে বাইরে খাস জমিগুলো প্রভাবশালীদের দখলে ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় প্রভাবশালীদের কাছ থেকে সেই জমি উদ্ধার করে ভূমিহীনদের দেয়া হচ্ছে।
খাসজমি বন্দোবস্তির দলিল ও নামজারি খতিয়ান হাতে পাওয়া উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ভূমিহীন হত দরিদ্র আমিনুল ইসলাম ও সুফিয়া বেগম। তারা দুইজনই একই ইউনিয়নের পাশাপাশি গ্রামের বাসিন্দা। এক প্রতিক্রিয়ায় তারা বলেন, এতদিন অন্যের কাছ থেকে জমি বর্গা নিয়ে চাষ করে কোনভাবে আমরা পরিবারের সদস্যদের জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলাম। এখন জমির মালিকানা পেয়ে আমরা খুব খুশি।
লামা : ভূমি ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বৃদ্ধি এবং গতিশীলতা আনয়নের লক্ষ্যে বান্দরবানের লামা উপজেলায় ভূমি সেবা সপ্তাহ শুরু হয়েছে। এ উপলক্ষে বুধবার সকালে এক র‌্যালি উপজেলা শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শেখ মাহাবুবুর রহমান, মৎস্য কর্মকর্তা জয় বনিক, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তপন কুমার চৌধুরী, আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুল্লাহ মোহাম্মদ ইমতিয়াজ প্রমুখ অতিথি ছিলেন। সভায় নির্বাহী অফিসার নূর-এ-জান্নাত রুমি ভূমি নামজারি, বায়নানামা করার প্রয়োজনীয় নিয়মাবলীসহ বিভিন্ন সেবার দিক তুলে ধরে বলেন, ভূমি অফিসের উদ্যোগে সপ্তাহব্যাপি বিশেষ সেবা দেয়া শুরু হয়েছে। এ সেবা শুধু উপজেলা শহরে নয়, তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার লক্ষে ইউনিয়ন পর্যায়েও স্থানীয়দের নিয়ে উঠান বৈঠক করা হবে। উপজেলার পাহাড়ি বাঙালিরা মিলেমিশে থাকলে ভূমি বিরোধ থাকবেনা বলেও মন্তব্য করেন তিনি। সভায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী, সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারী, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।