ইরাকে বিক্ষোভকারীদের ওপর বন্দুকধারীদের হামলা, নিহত ১৯

5

ইরাকের রাজধানী বাগদাদে শুক্রবার বিক্ষোভকারীদের ওপর একদল অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীর সিরিজ হামলায় অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছে। নিরাপত্তা বাহিনী ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে দুই পুলিশ কর্মকর্তাও রয়েছেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ইন্ডিপেনডেন্ট।শুক্রবার বিক্ষোভকারীরা নগরীর বিভিন্ন স্থানের দখল নিলে তাদের ওপর অতর্কিতে এ হামলা চালানো হয়। তবে নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে এখনও আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
ইন্ডিপেনডেন্ট জানিয়েছে, হামলাকারীরা বিভিন্ন গাড়ি থেকে গুলিবর্ষণ শুরু করলে জীবন বাঁচাতে বাগদাদের খিলানি স্কয়ার থেকে দৌড়ে পালাতে শুরু করে বিক্ষোভকারীরা। বাগদাদের বিক্ষোভের কেন্দ্রস্থল তাহরির স্কয়ার সংলগ্ন এলাকাতেও হামলা চালানো হয়েছে। সেখানে অন্তত ৬০ জন আহত হয়েছেন। তবে কারা এসব হামলা চালিয়েছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। তাহরির স্কয়ারে সন্দেহজনক এক ছুরি হামলায় অন্তত ১৩ জন আহত হওয়ার একদিনের মাথায় গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটলো। গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে কর্মসংস্থানের সংকট, নিম্নমানের সরকারি পরিষেবা এবং দুর্নীতির অভিযোগ তুলে বাগদাদের রাজপথে নামেন কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী। নির্দিষ্ট কোনও রাজনৈতিক দলের অনুসারী না হয়েও রাষ্ট্রীয় কার্যক্রমে অনিয়মের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধের আওয়াজ নিয়ে রাজপথে নামেন আন্দোলনকারীরা। নিরাপত্তা বাহিনী টিয়ার গ্যাস ও গুলি চালিয়ে তাদের ওপর চড়াও হলে এই বিক্ষোভ আরও জোরালো হয়ে ওঠে, ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন শহরে। বিশেষ করে শিয়া অধ্যুষিত দক্ষিণাঞ্চলীয় বেশ কয়েকটি শহরে বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করে।
ইরাকের আধাসরকারি মানবাধিকার কমিশন জানিয়েছে, গত ১ অক্টোবর বিক্ষোভ শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ৪৬০ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও ১৭ হাজার। জাতিসংঘ ও ইরাকের মানবাধিকার কমিশনের মতে, বেশিরভাগ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে বিক্ষোভকারীদের ওপর সরকারি বাহিনীর মাত্রাতিরিক্ত বল প্রয়োগ ও গুলিবর্ষণের ফলে। এরমধ্যেই শুক্রবার অজ্ঞাত দুষ্কৃতিকারীদের গুলিতে হতাহতের ঘটনা ঘটলো।