আসাম্প্রদায়িক, সাম্যবাদী কোভিড-১৯ চিকিৎসায় ধনী-গরীব বৈষম্য নিরসন জরুরি

7

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাবের কালে এ দেশের মানুষও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ বৈশ্বিক মহামারীর নমুনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় ধনী-গরীব বৈসম্যের কথা উঠে এসেছে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এর বক্তব্যে। যা আমরা পত্রিকান্তরে দেখেছি, জানুয়ারি থেকে এদেশে করোনা সনাক্ত হওয়ার পর হতে সরকারের প্রচেষ্টার ত্রæটি ছিল না। তবে কোভিড-১৯ রোগের নমুনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় আশানুরূপ সফলতা ও অনুক‚ল পরিবেশ বিষয়ে নানা ঘাটতি দেখা গিয়েছে। যার ফলে প্রাথমিক পর্যায়ে নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্র ছিল খুবই সীমিত। পরবর্তিতে নমুনা পরীক্ষার ক্ষেত্র বাড়ানো হয়। পরীক্ষার ক্ষেত্র বাড়লেও যা পর্যাপ্ত নয়। এমতাবস্থায় দৈনিক পূর্বদেশ পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যায় চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষায় কিট সংকটের কারণে অর্ধেক রোগী পরীক্ষার ফলাফল পাচ্ছে না। যে কারণে বিগত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যা পূর্বের চেয়ে অর্ধেকের বেশি সংখ্যক কমে এসেছে। ২৯ জুনের পত্রিকার রিপোর্টে শনাক্তের সংখ্যা ৬৪ জন মাত্র।
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে দেশের হাসপাতালগুলোতে প্রচÐ চাপের মধ্যে রয়েছে। করোনা রোগীর পাশাপাশি সাধারণ রোগীরা পর্যন্ত হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা ঠিক মতো পাচ্ছে না। তার উপর ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মীরা ধনী-দরিদ্র বৈষম্য দেখানোর কারণে নেক গরীব রোগী সময় মতো নমুনা পরীক্ষা করাতে পারছে না। অন্য দিকে চিকিৎসা সেবার ক্ষেত্রেও ধনীদের টাকার জোরের কাছে দরিদ্ররা পিছিয়ে পড়ছে। যার কারণে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী এ বিষয়ে মন্তব্য করতে বাধ্য হয়েছেন। সরকারি বেসরকারি হাসপাতালের ডাক্তাররা দেশের মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলেন। তাঁরা পেশায় যেমন দক্ষ, তেমন মানবিক মূল্যবোধেও সাধারণ মানুষের চেয়ে বেশি সচেতন হওয়ার কথা। কিন্তু কার্যত এদেশের ডাক্তার এবং হাসপাতাল সংশ্লিষ্টদের আচরণ দেশের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের শুরু থেকেই সুখকর নয়। এটা আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দুর্নীতি, স্বজনপ্রিতি, অনিয়ম এদেশের সর্বক্ষেত্রে বিষফোঁড়া হয়ে বসে আছে। চিকিৎসা ব্যবস্থা অত্যন্ত মানবিক ও দারিত্বশীল সেক্টর। এ সেক্টরে দুর্নীতি ও বৈষম্য কারো কাম্য নয়। এক দিকে বৈশ্বিক মহানারীর কারণে দেশের মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা সংকটাপন্ন, অন্য দিকে কোভিড-১৯ আক্রান্ত এবং সাধারণ রোগীর সুচিকিৎসা না পাওয়া দেশের মানুষ কোন অবস্থাতে আশা করে না। যার কারণে সুচিকিৎসা এবং সময়মত চিকিৎসা না পাওয়ার কারণে দেশে অসংখ্য গরীব ও সাধারণ মানুষের জীবন অকালে ঝরে যাচ্ছে।
অনেকে কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষার খরচ পর্যন্ত যোগাড় করতে পারছে না। কিন্তু দরিদ্র সাধারণ মানুষ ভিটে বাড়ি বিক্রি করে চিকিৎসার জন্য দৌড়েও বৈষম্যের শিকার হবে, এমন আচরণ সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল এবং ডাক্তার ও চিকিৎসা সংশ্লিষ্টদের কাছে এদেশের মানুষ আশা করে না। এব্যাপারে সংশ্লিষ্টদের মানবিক ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে এমন দাবী সর্বস্তরের মানুষের।