বোয়ালখালীতে অটোরিকশা চালককে হত্যা

আসামিদের আদালতে স্বীকারোক্তি

বোয়ালখালী প্রতিনিধি

5

সিএনজি চালককে হত্যাকারী ৩ জন পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। তারা গত বুধবার রাতে পটিয়া থেকে ৪ জনে মিলে বোয়ালখালী উপজেলার শ্বশুর বাড়ি যাওয়ার কথা বলে ৪শত টাকায় অটো রিকশাটি ভাড়া করেছিল। রাত ১১টার সময় বোয়ালখালী উপজেলার শাকপুরা বড়–য়ার টেক এলাকায় পৌঁছে নির্জনস্থানে অটোরিকশা চালক নুরুল আমিনকে গাড়ি থামাতে বলে। এরপর তারা নুরুল আমিনকে জিম্মি করে অটোরিকশার যাত্রী আসনে নিয়ে গায়ে থাকা কম্বল দিয়ে মুখ চেপে ধরে ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করেছে বলে দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকরোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে গ্রেফতারকৃত সুচীন বড়ুয়া, সুমন দাশ ও নিলয় দে।
গত ৩০ নভেম্বর, শুক্রবার চট্টগ্রাম চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল্লা কায়সারের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ ঘটনায় বর্ণনা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই দেলোয়ার হোসেন। আদালত আসামীদের জবানবন্দি শেষে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।
এসআই দেলোয়ার বলেন, আসামীদের স্বীকারোক্তিমতে ঘটনাস্থলের পাশের একটি পুকুর থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে নুরুল ইসলাম জিসান বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। পলাতক আসামীকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
উল্লেখ্য গত ২৮ নভেম্বর বুধবার রাতে উপজেলার শাকপুরা বড়ুয়ার টেক এলাকায় যাত্রীবেশে ছিনতাইকারীরা পটিয়া পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের মোল্লা পাড়ার নুরুল হকের ছেলে অটোরিকশা চালক নুরুল আমিনকে (৪৫) ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। পরে তাকে রাস্তায় ফেলে দিয়ে গাড়ি নিয়ে পালানোর সময় অটোরিকশা চালকের আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী ছিনতাইকারীদের আটক করে টহল পুলিশ হাতে তুলে দেন।