মৃত্যুবার্ষিকীতে ভূমিমন্ত্রী জাবেদ

আমার বাবা আজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন

আনোয়ারা প্রতিনিধি

15

ভ‚মিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি বলেছেন, আমার বাবা আখতারুজ্জামান বাবু সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে গেছেন। তিনি রাজনীতির পাশাপাশি মানবসেবাকেও সমান গুরুত্ব দিতেন। এজন্য তিনি সাধারণ মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছেন। আনোয়ারা-কর্ণফুলীকে নিয়ে তার অনেক স্বপ্ন ছিল। তার সেই স্বপ্ন আমি বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছি।
আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সোমবার হাইলধর গ্রামের বাড়িতে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ, আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন পৃথক পৃথক কর্মসূচি পালন করেন।
বিকালে মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে বাবুর জ্যেষ্ঠ পুত্র ভ‚মিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি কবর জিয়ারত ও পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। পরে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ভ‚মিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, কর্ণফুলী উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল মান্নান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক এম.এ মালেক, সাবেক সভাপতি শামসুদ্দিন আহমদ চৌধুরী, বাহা উদ্দিন খালেদ শাহজী, ভূমি প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সহকারী সচিব রিদোয়ানুল করিম চৌধুরী সায়েম, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য এস.এম আলমগীর চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের এডহক কমিটির সদস্যদের মাঝে ভিপি জাফর উদ্দিন চৌধুরী, এইচ এম নজরুল ইসলাম, ফজলুল করিম চৌধুরী বাবুল, হাফেজ আবুল হাসান কাশেম, কলিম উদ্দিন, সগির আজাদ, আলম গীর আজাদ, বোরহান উদ্দিন চৌধুরী মুরাদ, চেয়ারম্যানদের মাঝে মো. সোলাইমান, জানে আলম, হাসনাইন জলিল চৌধুরী শাকিল, মো. ইয়াছিন হিরু, অসিম কুমার দেব, শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, এমএ কাইয়ুম শাহ, নাজিম উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান এয়াকুব আলী চৌধুরী, শ্রমিক লীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. সৈয়দ, যুবলীগের আহŸায়ক শওকত ওসমান, সদস্য সচিব অনুপম চক্রবর্ত্তী বাবু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওসমান গণি রাসেল, সদস্য এম নজরুল ইসলাম, ভ‚মিমন্ত্রীর সহকারী এড. ইমরান হোসেন বাবু, আনোয়ারা পুঁজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দোলন মজুমদার, আখতারুজ্জামান সেন্টার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি আজিজুল হক নসু, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ নেতা এমএ আব্বাস সহ দলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।
এর আগে বাবুর ছোট ছেলে আফিফুজ্জামান চৌধুরী জিমি ও পরিবারের সদস্যরা কবর জিয়ারত ও পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। তাছাড়া সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, সহ-সভাপতি আবুল কালাম চৌধুরী, এমএ হান্নান চৌধুরী মঞ্জু, উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, সামাজিক সংগঠনসহ দক্ষিণ জেলার বিভিন্ন উপজেলার বিপুল সংখ্যাক দলীয় নেতাকর্মী ও নানা পেশার মানুষ বাবুর কবরে পুস্পমাল্য অর্পণ শেষে কবর জিয়ারত ও শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।