সড়ক আইন সংশোধনের দাবি

আজ থেকে সারাদেশে ৪৮ ঘণ্টার পরিবহন ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক

31

সড়ক দুর্ঘটনা সম্পর্কিত সব মামলা জামিনযোগ্য করা, শ্রমিকের অর্থদন্ড ৫০ হাজার টাকার অধিক না করা, সড়ক দুর্ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক প্রতিনিধি রাখার বিধিমালা প্রণয়ন, ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদানে শিক্ষাগত যোগ্যতা ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত করা, পুলিশ ও বিআরটিএ কর্তৃক শ্রমিক নির্যাতন ও হয়রানি বন্ধ করা করাসহ ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’ এর সংশোধনের জন্য ৮ দফা দাবিতে আজ (রবিবার) থেকে সারাদেশে ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতির ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন।
কেন্দ্র ঘোষিত দেশব্যাপী সড়ক পরিবহন কর্মবিরতি বৃহত্তর চট্টগ্রামে সফল করার লক্ষ্যে গতকাল শনিবার বিকালে নগরীর স্টেশন রোডস্থ বিআরটিসি বাস টার্মিনালে এক শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির কার্যকরী সভাপতি রবিউল মাওলার সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংগঠনের পূর্বাঞ্চল (চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ) কমিটির সভাপতি মৃণাল চৌধুরী।
অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির প্রচার সম্পাদক হাজী আবদুস ছবুর, জহিরুল ইসলাম, হারুনুর রশিদ, মো. হারুন, মো. ইউছুফ, জাহেদ হোসেন, আবুল খায়ের, নুরুল কবির, হাজী আবদুল নবী লেদু, নুরুল হক পুতু, শামসুল আলম, মো. ইয়াছিন, নুরুল ইসলাম, জামাল রশিদ, আবুল কাশেম, মো. একরাম, আইয়ুব উল্লাহ আজাদ, জসিম উদ্দিন, আবদুস শুক্কুর, মো. শফি, মো. ইউনুছ, মো. হারুন, নজরুল ইসলাম, জানে আলম, নূর মোহাম্মদ, আবদুল কুদ্দুস প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহিম।
সভায় কর্মবিরতি সফল করার জন্য বৃহত্তর চট্টগ্রামের সকল সেক্টরের সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের প্রতি অনুরোধ জানানোর পাশাপাশি কর্মবিরতি চলাকালে সড়কে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা, প্রতিবন্ধকতা, গাড়ি ভাঙচুর থেকে বিরত থাকার আহবান জানানো হয়। সভায় এক প্রস্তাবে কর্মবিরতি চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষার্থীদের বহনকারী যানবাহনে বাধা সৃষ্টি না করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়।
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরাকান সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মুছা বলেন, ‘চালকরা সড়কে ইচ্ছে করে কোনো দুর্ঘটনা ঘটায় না। চালকদের বিরুদ্ধে মামলা অজামিনযোগ্য হতে পারে না। নতুন সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ এ চালকদের মামলা অজামিনযোগ্য করা হয়েছে। এসব মামলা জামিনযোগ্য করাসহ ৮ দফা দাবিতে রবি ও সোমবার ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতি ঘোষণা করা হয়েছে। কেন্দ্র ঘোষিত এ কর্মসচি সফল করতে আমরা পদক্ষেপ নিয়েছি। আমাদের এসব দাবি মানা না হলে আরো বৃহত্তর কর্মসুচি দেবো।’