অ্যাপ নিয়ে এলো কেয়ার টিউটর

19

অনলাইনভিত্তিক টিউশন সাইট ‘কেয়ার টিউটর’ এবার অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ নিয়ে এসেছে। অতিস¤প্রতি অ্যাপটি আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হয়। রাজধানীর উত্তরায় কেয়ার টিউটরের প্রধান কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মতিন ইমন অ্যাপটি উদ্বোধন করেন। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মাসুদ পারভেজ রাজু উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, অ্যাপে বেশকিছু বাড়তি সুবিধা যুক্ত করা হয়েছে। টিউটর (শিক্ষক) এবং অভিভাবক উভয়ের জন্যই এসব সুবিধা কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
অ্যাপের অন্যতম কয়েকটি সুবিধা হলো- টিউটর প্রোফাইল তৈরি, শিক্ষার্থীর বাসার ডিরেকশন পাওয়া, অ্যাপ্লাই করা, টিউশন জব আন্ডু বা বাতিল করা ইত্যাদি। অনেক সময় টিউটররা দ্রূততার সঙ্গে অ্যাপ্লাই করেন। কিন্তু অ্যাপ্লাইয়ের পর বুঝতে পারেন যে, তিনি এমন শিক্ষার্থী চাচ্ছিলেন না কিংবা তিনি এমন শিক্ষার্থীর জন্য যোগ্য নন। এ অবস্থায় অ্যাপ্লাই বাতিল করতেই মূলত আন্ডু সুবিধা চালু করা হয়েছে।
অ্যাপটির মাধ্যমে ডিজিটাল পেমেন্ট করা যাবে। ফলে টাকা-আদান প্রদান হবে আরও সহজ এবং নিরাপদ। কেয়ার টিউটর অ্যাপটি ব্যবহার করে অভিভাবক এবং টিউটররা নিজেদের চাহিদামতো জব পোস্ট করতে পারবেন। এতে পছন্দের জব বা টিউটর পাওয়া আরও সহজ হবে।
অ্যাপ সম্পর্কে মাসুদ পারভেজ রাজু বলেন, আমাদের অ্যাপটি ব্যবহার করে একজন টিউটর তার শিক্ষার্থীর বাসার লোকেশনের ১০০ মিটার পর্যন্ত দেখতে পাবেন যা তাকে শিক্ষার্থীর বাসার লোকেশন সম্পর্কে সঠিক ধারণা দেবে। এক্ষেত্রে নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে শিক্ষার্থীর সঠিক বাসাটি দেখানো হবে না। তবে ওই বাসার আশেপাশের ১০০ মিটার দেখানো হবে। তিনি এই সুবিধাকে টিউটরদের জন্য আকর্ষণীয় সুবিধা হিসেবে উল্লেখ করেন।
কেয়ার টিউটর অ্যাপে অভিভাবকদের জন্য সবচেয়ে আকর্ষণীয় সুবিধা কোনটি জানতে চাইলে রাজু বলেন, আমাদের অ্যাপের মাধ্যমে কোনও অভিভাবক টিউটর চাইলে অ্যাপ্লাই করা টিউটরদের মধ্য থেকে সবচেয়ে ভালো পাঁচজন টিউটরের তালিকা ওনার কাছে পৌঁছে যাবে। এরপর তিনি তার পছন্দমতো টিউটর বেছে নিতে পারবেন। এ সম্পর্কে কেয়ার টিউটরের প্রতিষ্ঠাতা আরও বলেন, একটি টিউশন পোস্টের জন্য ২০০ থেকে ৩০০ টিউটর অ্যাপ্লাই করতে পারে। এতগুলো অ্যাপ্লিকেশন একজন অভিভাবকের পক্ষে বিশ্লেষণ করা অনেক সময় সাপেক্ষ ব্যাপার, বলতে গেলে অসম্ভব। এজন্য আমরা সবগুলো বিশ্লেষণ করে সবচেয়ে উপযুক্ত পাঁচজনের তালিকা অভিভাবকদের কাছে পাঠাই। এতে তাদের কাজটা অনেক সহজ হয় এবং সবচেয়ে ভালো টিউটর পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। কেয়ার টিউটর অ্যাপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীর বাসার ডিরেকশনও পাবেন টিউটররা। নতুন টিউশন শুরু করলে হঠাৎ করে একটি জায়গায় যেতে কিছুটা সমস্যা হয়। বিশেষ করে প্রথম দিন এই বিশাল আকার ধারণ করে। এজন্য কেয়ার টিউটর অ্যাপ যুক্ত করেছে শিক্ষার্থীর বাসার ডিরেকশন সুবিধা। এতে একজন টিউটর তার শিক্ষার্থীর বাসার ১০০ মিটারের মধ্যে যেতে সক্ষম হবেন।
এসব সুবিধা ছাড়াও অভিভাবক ও টিউটরদের কথা মাথায় রেখে কয়েকদিনের মধ্যেই আরও নতুন কিছু সুবিধা চালু করবে কেয়ার টিউটর। বর্তমানে অ্যাপটি শুধু অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম গ্রাহকদের জন্য অবমুক্ত করা হলেও দ্রুতই আইওএস ভার্সনটি উন্মোচন করা হবে।