অশোক বুড্ডিস্ট কমিউনিটির দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি

5

তারুণ্যে উজ্জীবিত বৌদ্ধ সংগঠন অশোক বুড্ডিস্ট কমিউনিটির দ্বিতীয় বর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, বৌদ্ধ ধর্মীয় সূত্রপাঠ ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা গতকাল চান্দগাঁও সার্বজনীন শাক্যমুনি বিহার মিলনায়তনে সংগঠনের উপদেষ্টা ও মহানগর যুবলীগ নেতা সিজার বড়ুয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সদস্য ও প্রত্যয় ৭১ এর সভাপতি সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ যুব’র সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. সুব্রত বরণ বড়ুয়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি যুব’র সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার বড়ুয়া, বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘ যুব’র সহ-সভাপতি ডা. দিবাকর বড়ুয়া। প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন ভদন্ত করুনানন্দ থের, প্রধান জ্ঞাতি ছিলেন সিডিএ কর্মকর্তা নিক্সন বড়ুয়া। অনুষ্ঠানে প্রধান শিক্ষিকা রুমা বড়ুয়াকে শ্রেষ্ঠ ক্যাপ প্রাপ্তিতে সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক দীপন বড়ুয়া ও অপরাজিতা বড়ুয়া’র সঞ্চালনায় শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দীপন বড়ুয়া ও সাংগঠনিক বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দুর্জয় বড়ুয়া। বক্তব্য রাখেন বিহার পরিচালনা কমিটির সম্পাদক সৈকত বড়ুয়া, কলামিস্ট অনুপ বড়ুয়া। সংগঠনের মহিলা সম্পাদিকা পাপিয়া বড়ুয়ার নেতৃত্বে অতিথিদের বরণের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। এতে সংগঠনের সদস্য টিপু, পংকজ, অনয়, অকিব, জয়, নিলয়, শান্তু, ইমন, দিপ্ত, সজীব, অনামিকা, শাওন, রোমেন, রাজেশ উপস্থিত ছিলেন। সভায় বক্তারা বলেন, মৌর্য সম্রাট অশোক ছিলেন বৌদ্ধ ধর্মের প্রধান পৃষ্ঠপোষক। তিনি সমগ্র ভারতবর্ষে চুরাশি হাজার ধর্মস্কন্ধ নির্মাণ করে ইতিহাসে অমর হয়ে আছেন। তাছাড়া তিনি তাঁর ছেলে মহেন্দ্র ও মেয়ে সংঘমিত্রাকে বৌদ্ধধর্ম প্রচারের জন্য শ্রীলঙ্কা পাঠান। সম্রাট অশোকের নামে এ সংগঠনের নামকরণ করায় উদ্যোক্তারা প্রশংসনীয় কাজ করেছে। বক্তারা আশা করেন সংগঠনের কর্মকর্তাগণ আজকের মত ভবিষ্যতেও তাদের কর্মপ্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে এবং সম্রাট অশোকের নামকে সমুজ্জ্বল রাখবে।
সভা শেষে ২০১৯ সালে এসএসসি-তে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। তাছাড়া বৌদ্ধ ধর্মীয় সূত্র পাঠ প্রতিযোগিতা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরষ্কার প্রদানের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়। বিজ্ঞপ্তি