অনুপ্রবেশকারীদের তাড়ানো হবে : অমিত শাহ

9

আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকায় নাম না থাকা ১৯ লক্ষাধিক মানুষের প্রত্যেককে দেশছাড়া করার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। রবিবার আসামের গুয়াহাটিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তার ভাষায়, ‘প্রতিটি অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে তাড়িয়ে দেওয়া হবে।’ অমিত শাহ বলেন, ‘জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে অনেকে অনেক রকম প্রশ্ন তুলেছেন। আমি স্পষ্টভাবে বলতে চাই, ভারত সরকার, একজন অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকেও এদেশে থাকতে দেবে না। এটা আমাদের প্রতিশ্রæতি।’ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথমবারের মতো আসাম সফরে গেলেন অমিত শাহ। ১৯৫৮ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে আসামকে সবচেয়ে উপদ্রæত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার। ২০১৯ সালের ৩১ আগস্ট প্রকাশিত আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ। তবে এ তালিকা নিয়ে খুশি নয় ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। আসামের রাজ্য সরকারেও ক্ষমতায় রয়েছে দলটি। বিজেপি ও তার মিত্রদের প্রত্যাশা ছিল, এ তালিকাকে হাতিয়ার করে আরও অধিক সংখ্যক মুসলিমের নাগরিকত্ব বাতিল করে তাদের রাষ্ট্রহীন মানুষে পরিণত করা হবে। ফলে তালিকায় আরও বেশি সংখ্যক মুসলিমের নাম বাদ না পড়ায় ক্ষোভ বিরাজ করছে বিজেপি ও তার মিত্রদের মধ্যে। চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর আসামের অর্থমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেছেন, এনআরসি নিয়ে বিজেপি সন্তুষ্ট নয়।
আরও বেশি সংখ্যক অবৈধ অভিবাসীর (মুসলিম) নাম তালিকা থেকে বাদ পড়ার কথা। রাজ্য থেকে সব বিদেশিকে তাড়িয়ে দিতে বিজেপি কাজ করে যাবে। ২০১৮ বিধানসভা নির্বাচন এবং ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ইশতেহারে অন্যতম ইস্যু ছিল নাগরিক তালিকা চূড়ান্ত করা। এ বছরের গোড়ার দিকে কথিত অনুপ্রবেশকারীদের (বাংলাভাষী মুসলিম) ‘উইপোকা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন বিজেপি নেতা ও ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি বলেন, অনুপ্রবেশকারীরা বাংলার মাটিতে উইপোকার মতো। বিজেপি সরকার তাদের এক এক করে তুলে বঙ্গোপসাগরে ছুড়ে ফেলবে।